আজকালের প্রতিবেদন- গঙ্গাসাগর মেলার আগেই মাঝেরহাটের নতুন সেতু খুলতে চায় রাজ্য সরকার। কিন্তু রেলের জন্য কাজ আটকে রয়েছে। সমস্যা দ্রুত কাটানোর অনুরোধ জানিয়ে সোমবার রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে চিঠি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ‘‌রেলওয়ে ট্র‌্যাকের ওপর যে সুপার স্ট্রাকচার তৈরি হওয়ার কথা, রেল নিরাপত্তা কমিশনারের ছাড়পত্র না পাওয়ার জন্য তা করা যাচ্ছে না। বাকি অংশের কাজ শেষের পথে। নিরাপত্তা কমিশনের ছাড়পত্র পেলেই সুপার স্ট্রাকচার তৈরির কাজ শুরু করা যাবে।’‌ এই পরিস্থিতিতে রেলমন্ত্রীকে অনুরোধ করে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘‌আপনি ব্যক্তিগত উদ্যোগ নিয়ে রেল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিন যাতে দ্রুত ছাড়পত্র পাওয়া যায়। তাছাড়া দ্রুত মাঝেরহাট সেতুর কাজ শেষ করতে ট্রেন চলাচল নিয়ন্ত্রণ–‌সহ বাকি সহযোগিতাও যেন করে রেল, তার নির্দেশও দেওয়া হোক।’‌ চিঠিতে তিনি আরও লিখেছেন, গঙ্গাসাগর মেলায় লাখ লাখ তীর্থযাত্রী আসেন। তাঁদের যাতে মেলা প্রাঙ্গণে পৌঁছতে কোনও অসুবিধে না হয় তার জন্যও দ্রুত কাজ শেষ করা প্রয়োজন। ডিসেম্বরের শেষে হলেই ভাল হয়। 
মুখ্যমন্ত্রী রেল মন্ত্রীকে জানিয়েছেন, ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পর রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ২০১৯–‌এর সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই নতুন মাঝেরহাট সেতু তৈরি করে ফেলবে। এই সেতু দক্ষিণ ২৪ পরগনার সঙ্গে কলকাতার মধ্যে যোগাযোগের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিশেষ করে সাগরদ্বীপের সঙ্গে। প্রতিবছর জানুয়ারির মাঝামাঝি সময়ে গঙ্গাসাগর মেলা উপলক্ষে উত্তরপ্রদেশ, বিহার, ঝাড়খণ্ড–‌সহ অসংখ্য তীর্থযাত্রী এই মেলায় আসেন। জাতীয়স্তরের উৎসব ও মানবতার ধর্ম‌ হিসেবেই একে দেখা হয়। তার জন্যেই ২০১৯–‌এর সেপ্টেম্বরের মধ্যেই এই সেতুই তৈরি করে ফেলার কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু রেলমন্ত্রক থেকে ঠিক সময়ে ছাড়পত্র না মেলায় কাজটাও নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করা যায়নি। ‌‌
মাঝেরহাট সেতু ভেঙে যাওয়ার অল্প সময়ের মধ্যে বিকল্প রাস্তা চালু করে রাজ্য সরকার এবং পুলিশ–প্রশাসন। সেতু ভাঙার ৩৮ দিন পর বেইলি ব্রিজ চালু করা হয়। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, বিদ্যাসাগর সেতুর আদলেই গড়ে উঠতে চলেছে মাঝেরহাট সেতু। বিদ্যাসাগর সেতুর মতো ‘কেব্‌ল–স্টেড ব্রিজ’ হবে। এখনও পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি। সেতুর ধারণক্ষমতা বাড়াতে এবং সেতুকে আরও শক্তপোক্ত করতেই এই আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।‌‌‌‌‌‌

মাঝেরহাট ব্রিজ। ফাইল ছবি

জনপ্রিয়

Back To Top