আজকাল ওয়েবডেস্ক: নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কৃষক সম্মেলনে সশরীরে উপস্থিত না থাকলেও, ধর্না মঞ্চ থেকেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কৃষকদের পাশে সবসময় আছেন বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। রবিবার শহরে কেন্দ্র–রাজ্য সংঘাতের চাপান–উতোরে অস্থির পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। পুলিস কমিশনার রাজীব কুমারের পাশে দাঁড়াতে রবিবার রাত থেকেই অনশনে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই তিনি সোমবার কৃষক সম্মেলনে যোগ দিতে পারেননি। 
মমতা ব্যানার্জী এদিন ধর্না মঞ্চ থেকে বিজেপি সরকারকে তুলোধনা করে বলেন, ‘‌নরেন্দ্র মোদি সরকার রাজনৈতিকভাবে আমাদের প্রশাসনকে হেনস্থা করতে চাইছে। নোংরা রাজনীতি করতে নেমেছে কেন্দ্র। মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে তারা। প্রতিহিংসামূলক আচরণ মোদি সরকারের। এটা বরদাস্ত করা যাবে না।’‌ তিনি আরও বলেন, ‘‌কেন্দ্রে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আসার পরই কৃষকদের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে। দেশে প্রায় ১২ হাজার কৃষক আক্রান্ত। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কৃষক আন্দোলন হলেও হুঁশ ফেরনি বিজেপির।

নোটবন্দীর পরেই কৃষকরা আরও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’‌ মুখ্যমন্ত্রী সিঙ্গুর আন্দোলনের প্রসঙ্গ টেনে জানান, এর আগেও তিনি কৃষকদের জন্যই টানা ২৬ দিন অনশনে বসেছিলেন। এরপরই কৃষকদের মধ্যে জাগরণ সৃষ্টি হয়। মমতা ব্যানার্জী বলেন, ‘‌নোটবন্দীর পর থেকে কৃষকদের অসহায় অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। দেশের বহু কৃষক না খেতে পেয়ে মারা গিয়েছেন, কেউ কেউ আত্মহত্যা করতে বাধ্য হচ্ছেন। পরিবারের মুখে অন্ন তুলে দিতে পারছেন না তাঁরা। কিন্তু আমরা কৃষি জমি নষ্ট করতে দিই না। অনশন করে আমি কৃষকদের সিঙ্গুর ফিরিয়ে দিয়েছিলাম।’‌
মুখ্যমন্ত্রী এদিন মোদি সরকারকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘‌কৃষকদের শস্যবীমা প্রকল্পে রাজ্য ৮০ শতাংশ টাকা দেয়। কেন্দ্রের কোনও ভূমিকা নেই তাতে। কেন্দ্র সরকারের টাকা রাজ্য নেবেও না। শুধু বক্তব্য বা প্রতিশ্রুতি দিলেই ক্ষমতায় থাকা যায় না। কৃষকদের জন্য সরকারের বহু প্রকল্প রয়েছে। কারণ কৃষি হল ভিত্তি।’‌ কৃষকদের উদ্দেশ্যে মমতা বলেন, ‘‌আপনাদের দুর্বলতা নিয়ে কেউ যেন রাজনীতি করতে না পারে। আমি আপনাদের জন্য জীবন দিয়ে আন্দোলন করেছিলাম। আজও আপনাদের পাশে সবসময় আছি।’‌      ‌

জনপ্রিয়

Back To Top