Kolkata: অনুমতি না থাকা সত্ত্বেও নাগরিক মঞ্চের মিছিল, পুলিশে পুলিশে ছয়লাপ ধর্মতলা চত্ত্বর

আজকাল ওয়েবডেস্ক: অনুমতি না থাকা সত্ত্বেও মিছিল করল নাগরিক মঞ্চ।

মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন আইএসএফ সমর্থকরা। পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া আইএসএফ বিধায়ক নৌশাদ সিদ্দিকি এবং অন্যান্য আইএসএফ কর্মীদের মুক্তির দাবিতে বুধবার এই মিছিলের আয়োজন করে নাগরিক মঞ্চ। পুলিশের অনুমতি ছিল না। তাই এই মিছিল ঘিরে এদিন তুঙ্গে ছিল তাদের তৎপরতা। রাজভবনের দিকে রাস্তায় গার্ডরেল-সহ অন্যান্য ব্যবস্থা মোতায়েনের পাশাপাশি সিনিয়র অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন ধর্মতলায়। 
এদিন শিয়ালদহ স্টেশন থেকে মিছিল শুরু হওয়ার সময়ই পুলিশের সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু হয় মিছিলে যোগদানকারীদের। মিছিল এগোতে থাকে ধর্মতলার দিকে। ধর্মতলায় পৌঁছনোর পর ম্যাটাডোরের ওপর দাঁড়িয়ে বক্তব্য পেশ করেন আয়োজকরা।  যাতে কোনওরকম অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয় সেজন্য এদিন ধর্মতলা চত্ত্বর ছিল পুলিশে পুলিশে ছয়লাপ। রাণী রাসমণি অ্যাভিনিউতে যান চলাচল সাময়িক বন্ধ রাখা হয়।
আইএসএফের প্রতিষ্ঠা দিবস ২১ জানুয়ারির আগের দিন আইএসএফ এবং তৃণমূল কর্মীদের বচসায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাঙর এলাকা।‌ পরেরদিন তা আরও বড় আকার ধারণ করে। দু'পক্ষের সমর্থকদের সংঘর্ষে চরমে ওঠে পরিস্থিতি। হয় বোমাবাজি ও ভাঙচুর। ওইদিন আইএসএফ বিধায়ক প্রতিষ্ঠা দিবস পালন উপলক্ষে কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে ধর্মতলায় ছিলেন। ভাঙরের কয়েকজন তৃণমূল নেতৃত্বের গ্রেপ্তারির দাবিতে আইএসএফ সমর্থকরা ধর্মতলায় রাস্তা অবরোধ করেন।‌ বেশ‌ কিছূক্ষন অবরোধ চলার পর  পুলিশের পক্ষ থেকে অবরোধ তুলতে বলা হলেও তা অবরোধকারীরা মানেননি। ঘটনায় তৈরি হয় ব্যাপক যানজট। এরপরেই লাঠি উঁচিয়ে অবরোধকারীদের দিকে তেড়ে যায় পুলিশ। শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে অবরোধকারীদের সংঘর্ষ। সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ এবং অবরোধকারীদের কয়েকজন আহত হন। গ্রেপ্তার করা হয় নৌশাদ সিদ্দিকি-সহ বেশ কয়েকজন অবরোধকারীকে।

আকর্ষণীয় খবর