আজকালের প্রতিবেদন: করোনা মহামারীর মধ্যে শহরে পুর পরিষেবা সচল রাখতে ২০২০–২১ অর্থবর্ষের বাজেট পেশ করলেন কলকাতা পুরসভার প্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। মঙ্গলবার কলকাতা পুরসভায় ২০২০–২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন প্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। ১৭০ কোটি টাকার ঘাটতি বাজেট পেশ করেন। এ বছরের বাজেট একটু অন্যরকম ছিল। পরিচালিত পুরবোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর এপ্রিলে পুরনির্বাচন হয়নি। প্রশাসনিক বোর্ড গঠন করে চালানো হচ্ছে পুরসভার কাজ। এদিন প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্যদের সমর্থনে পুরসভার বাজেট পাশ করা হয়। পরে প্রধান প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘চলতি আর্থিক বর্ষের বাজেট পেশ করা হল। এই বাজেট জরুরি ছিল। কারণ, অক্টোবর থেকে পুরসভার কাজ চালানো অসম্ভব হয়ে পড়বে। আমরা এপ্রিলে পুরভোট চেয়েছিলাম। আমরা ভোটের জন্য প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু এই মহামারীর জন্য ভোট স্থগিত রাখা হয়। সেই পরিস্থিতিতে প্রশাসনিক বোর্ড তৈরি করা হয়। আমাকে এই প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়। ভয়ঙ্কর পরিস্থিতিতে নাগরিক পরিষেবা পৌঁছে দিতে এর আগে অন্তর্বর্তিকালীন একটা বাজেট করা হয়। ৩০ সেপ্টেম্বর সেই বাজেটের সময়সীমা শেষ হয়ে যাচ্ছে। পুরসভার কাজ চালাতে বাজেট পেশ জরুরি ছিল। তাই এই বাজেট পেশ করা হল। আমরা পুরভোটের জন্য যে কোনও সময় প্রস্তুত। কিন্তু নাগরিক পরিষেবা তো বন্ধ রাখা যায় না।’‌
এবারের বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দ করা হয়েছে ১৬৩ কোটি ৪৭ লক্ষ টাকা। গতবারের থেকে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। কঠিন ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা খাতে ৬০৬ কোটি ২৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। নিকাশি দপ্তরের জন্য ২৭৩ কোটি ৫৮ লক্ষ টাকা, বস্তি উন্নয়নে ১৮৬ কোটি ২৫ লক্ষ, শিক্ষা খাতে ৪৫ কোটি ৫১ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top