আজকালের প্রতিবেদন,দিল্লি: এবার থেকে আদিবাসী সংস্কৃতিতে জোর দেবে কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা। এবারই প্রথম লেপচা সংস্কৃতি তুলে ধরা হবে বইমেলায়। থাকবে লেপচা ভাষার বইয়ের স্টল। হবে বিশেষ অনুষ্ঠান। প্রদর্শিত হবে লেপচা সংস্কৃতির নানা বিষয়। ৩০ জানুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে ৪৩তম কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা। চলবে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। পরের বছরগুলিতে বোড়ো, রাভা ও খেড়িয়া সংস্কৃতিতেও জোর দেবেন বইমেলা কর্তৃপক্ষ।
এবার বইমেলার থিম দেশ লাতিন আমেরিকার গুয়েতেমালা। বুধবার দিল্লিতে প্রেস ক্লাব অফ ইন্ডিয়ায় সাংবাদিক সম্মেলন করে এ খবর জানালেন পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায়, অধিকর্তা সুধাংশু দে এবং যুগ্ম সম্পাদক মিলিন্দ দে। ছিলেন গুয়াতেমালার রাষ্ট্রদূত জিওভানি কাস্ত্রিও। তাঁর ঘোষণা, ‘‌কলকাতা বইমেলায় দুটি জায়েন্ট কাইট প্রদর্শন করা হবে। যা শুধু কলকাতা নয়, গোটা বিশ্বের নজর কাড়বে। এ ছাড়া দেশের নোবেলজয়ী সাহিত্যিকের বই থাকবে। থাকবে বিশেষ রান্নাবান্নার বই। বেশ কিছু বইয়ের বাংলা অনুবাদও মিলবে।’‌
বইমেলায় অংশ নেবে আমেরিকা, ইংল্যান্ড, বাংলাদেশের মতো দেশগুলি। বাংলাদেশ থেকে আসছে ৪১টি প্রকাশক সংস্থা। ১০ ফেব্রুয়ারি উদ্‌যাপন করা হবে ‘‌বাংলাদেশ দিবস’‌। এক প্রশ্নের জবাবে ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায় জানান, পাকিস্তান কলকাতা বইমেলায় অংশ নিতে চাইলেও সম্ভবত ভিসা সমস্যার কারণে প্রকাশকরা আসতে পারছেন না। তাঁর দাবি, পাকিস্তানের ‘‌ন্যাশনাল বুক বোর্ড’‌–‌এর কর্ণধার ইস্তিয়াক আহমেদ নিজে বইমেলা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন, কলকাতা বইমেলায় আসতে ইচ্ছুক হলেও ভারত সরকার ভিসা সমস্যার সমাধানে সদর্থক পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। ত্রিদিব আশাবাদী, আগামী দু’‌‌বছরের মধ্যে মিলন মেলা প্রাঙ্গণে বইমেলার স্থায়ী বন্দোবস্ত হবে।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top