আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অবশেষে ভোট গণনা শেষ হল। ফলপ্রকাশ হল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নির্বাচনের। কলাবিভাগে জিতল বাম ছাত্রসংগঠন। এছাড়া বিজ্ঞান ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দু’‌টিতেই বিশাল ভোটে জয়লাভ করল স্বাধীন ছাত্রসংগঠন।  
বিজ্ঞান বিভাগে এসএফআইকে দ্বিতীয় স্থানে রেখে চারটি পদেই বিপুল ভোট পেয়ে জয়লাভ করল ডব্লিউটিআই (‌উই দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট)‌। চেয়ার পার্সেনের (‌সিপি)‌ পদে ৭৯৭ ভোটের ব্যবধান। সাধারণ সম্পাদক পদে (‌জিএস)‌ ৭৭০ ভোটের ব্যবধান। সহকারী সাধারণ সম্পাদক (‌এজিএস)‌ পদে ৭০০ ভোটের ব্যবধান‌। সহকারী সাধারণ সম্পাদক (‌ইভিনিং) পদে ভোটের ব্যবধান ৭৬।  ‌ 
প্রথমবার যাদবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ছাত্রভোটে প্রার্থী দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে জায়গা করে নিয়েছে এবিভিপি। কিন্তু তাও ডেমোক্র‌্যাটিক স্টুডেন্টস ফোরাম বিশাল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছে। সিপি পদে ভোটের ব্যবধান ২৭৯৬। জিএস পদে ভোটের ব্যবধান ২৭৯৭। যাদবপুর ক্যাম্পাসের ‌এজিএস‌ পদে ভোটের ব্যবধান ২০০০। সল্টলেক ক্যাম্পাসের ‌এজিএস‌ পদে ভোটের ব্যবধান ৪৫৮। এজিএস (‌ইভিনিং) পদে এসএফআইকে দ্বিতীয় স্থানে রেখে ডিএসএফ–এর ভোটের ব্যবধান ১৪০।
কলাবিভাগে স্বাধীন ছাত্র সংগঠনকে ‌দ্বিতীয় স্থানে রেখে জয়লাভ করল এসএফআই। ‌সিপি পদে ভোটের ব্যবধান ১১৭০। জিএস পদে ভোটের ব্যবধান ১১৩৭। ‌এজিএস‌ পদে ভোটের ব্যবধান ৯০১। এজিএস (‌ইভিনিং) পদে ভোটের ব্যবধান ২৫৪।
বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস থমথমে ছিল। বুধবার শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচনী প্রক্রিয়া শেষ হলেও এদিন সকাল থেকে নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে পড়ুয়াদের মধ্যে উত্তেজনা ভরপুর। শেষবার যাদবপুরের নির্বাচন হয়েছিল তিন বছর আগে। এ বছর তাই উত্তেজনা চরমে। প্রতিবারের মতো এবার কলাবিভাগে ভোট গণনার সময়ে তেমন শোরগোল হয়নি। যেখানে গণনা চলছে তার বাইরে বিশেষভাবে সক্ষম ছাত্রছাত্রীরা ভোট প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে আন্দোলন চালাচ্ছিলেন। তাঁদের সম্মান জানিয়ে পড়ুয়ারা নিঃশব্দে গণনা প্রক্রিয়া শেষ হওয়া অবধি অপেক্ষা করেছেন। গণনার মাঝে ট্রেন্ড প্রকাশ্যে আসেনি।      ‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top