আজকালের প্রতিবেদন: জ্বলে উঠছে একের পর এক নানা রঙের আলো। বাজছে সুর। নতুন রূপে হাওড়া ব্রিজ। ব্রিজের সৌন্দর্যায়নে কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষ এই পরিকল্পনা নিয়েছে। আপাতত পরীক্ষামূলক প্রস্তুতি হচ্ছে। আলোতে সেতুর ওপর ফুটে ওঠা ছায়া সেতুকে দিচ্ছে এক আলাদা রূপ। দেখে নেওয়া হচ্ছে কোন রঙের আলোতে সেতু আরও সুন্দর হয়ে ওঠে। বন্দর সূত্রে জানা গেছে, রঙ বা সুরের সব কিছু খঁুটিয়ে বিচার করার পরেই ‘‌লাইট অ্যান্ড সাউন্ড’‌ চূড়ান্তভাবে চালু করা হবে। 
হুগলি নদীর ওপর তৈরি এই সেতু চালু হয় ১৯৪৩ সালে। কলকাতার সঙ্গে যোগাযোগের এই গুরুত্বপূর্ণ সেতুটি রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে আছেন কলকাতা বন্দর কর্তৃপক্ষ। সেতুটির নাম ‘‌রবীন্দ্র সেতু’‌ হলেও সাধারণের কাছে এর পরিচিতি হাওড়া ব্রিজ নামেই। 
ইতিমধ্যেই সেতুতে নানা রঙের আলো নিয়ে সাধারণের মধ্যে উৎসাহ তৈরি হয়েছে। বহু দূর থেকে দেখা যাচ্ছে এই আলো। হাওড়া স্টেশন বা কলকাতার বিভিন্ন জায়গা থেকে সেতুর এই রঙিন রূপ উপভোগ করা যাচ্ছে। বিশেষ করে জলপথে যাঁরা যাতায়াত করেন তাঁরা সন্ধের পর যখন জলপথে ফিরছেন তখন চোখ ভরে দেখছেন রঙের এই খেলা। তবে এখনই গোটা বিষয়টি নিয়ে কোনওরকম কিছু জানাতে চাইছেন না বন্দর কর্তৃপক্ষ। এক আধিকারিক বলেন, গোটা পরীক্ষাটি হয়ে যাওয়ার পর তঁারা এবিষয়ে জানাবেন। 
এর আগে সেতুতে নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরা বসিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। যার দায়িত্বে আছে কলকাতা পুলিশ। ৫৮টি ক্যামেরার জন্য তাদের খরচ হয়েছে দেড় কোটি টাকা।

আলোয় সেজেছে হাওড়া ব্রিজ। ছবি: কৌশিক কোলে ‌

জনপ্রিয়

Back To Top