আজকালের প্রতিবেদন: শহরে ফের মাদক চক্রের খোঁজ পেল পুলিশ। চক্রটির লক্ষ্য ছিল কলেজ পড়ুয়া ও তরুণরা। ফোন করলেই নির্দিষ্ট জায়গায় টাকার বিনিময়ে হাতবদল হয়ে যেত মাদক। অভিযান চালিয়ে এই ঘটনায় পঁাচজন কলেজ পড়ুয়া এবং তিনজন মাদক বিক্রেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃত পড়ুয়ারা রৌনক জৈন, রৌনক সিং, লক্ষ্য আগরওয়াল, সায়ন ব্যানার্জি এবং অর্ঘ্যকমল ব্যানার্জি বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। এদের থেকে সাড়ে তিন গ্রাম হেরোইন উদ্ধার হয়েছে। যার বাজার দর ৮ হাজার টাকা। বৃহস্পতিবার রাত ১১টা নাগাদ ৭৫, শরৎ বোস রোড থেকে এদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃতদের জেরায় তিন মাদক বিক্রেতার সন্ধান পায় পুলিশ। সেইমতো অভিযান চালিয়ে রাত আড়াইটে নাগাদ আশুতোষ কলেজ সংলগ্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় আমন গুপ্তা, অসীম হাইত এবং প্রীতম পাত্র নামে তিন মাদক বিক্রেতাকে। এদের থেকে ৪০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার হয়েছে। যার মূল্য ১ লক্ষ টাকা। চক্রটি গত তিন মাস ধরে এই কাজ করছিল বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। পড়ুয়া এবং বিক্রেতা, সকলের বিরুদ্ধেই ভবানীপুর থানায় এনডিপিএস আইনে মামলা শুরু হয়েছে বলে পুলিশসূত্রে জানা গেছে। উল্লেখ্য, মাদক চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে এর আগেও স্কুল বা কলেজ এলাকায় মাদক বিক্রির অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 
এ বিষয়ে এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, তঁারা খবর পেয়েছিলেন একটি মাদক বিক্রির চক্র দক্ষিণ কলকাতায় সক্রিয় আছে। যাদের মূল লক্ষ্য হল যুবক এবং পড়ুয়া। খোঁজ নিয়ে তঁারা জানতে পারেন শহরের বেশ কিছু সংখ্যক তরুণ এবং পড়ুয়াদের কাছে  চক্রের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের ফোন নম্বর আছে। প্রয়োজন হলেই সেই নম্বরে ফোন করলে মাদক পৌঁছে দেওয়া হয়। গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল এদের ধরার জন্য খোঁজখবর শুরু করে। সেইমতো বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশের নারকোটিক্স বিভাগের দলটি শরৎ বোস রোডের ওই জায়গা থেকে ওই পড়ুয়াদের ধরে। এদের যখন ধরা হয় তখন তারা মাদক সেবন করছিল। 
থানায় নিয়ে গিয়ে জেরা শুরু করা হয় তাদের। জেরায় অভিযুক্তরা মাদক বিক্রেতাদের সম্পর্কে জানায়। সেই তথ্যের ওপর ভিত্তি করে ধরা হয় তিন মাদক বিক্রেতাকে। ফোন পেয়ে এই তিনজন মাদক নিয়ে ক্রেতার জন্য অপেক্ষা করছিল। জেরায় বিক্রেতারা স্বীকার করেছে কলেজ পড়ুয়া ছাড়াও শহরে তাদের আরও অনেক ক্রেতা আছে। চক্রটির সঙ্গে আর কারা যুক্ত আছে।  

জনপ্রিয়

Back To Top