আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মাদককাণ্ডে জড়িত থাকার অপরাধে বিজেপি নেতা রাকেশ সিং ছাড়াও আরও ১ জনকে গ্রেফতার করল নিউ আলিপুর থানার পুলিশ। ধৃত ২ জনকেই আজ আদালতে পেশ করা হবে। পুলিশের দাবি, পামেলার সঙ্গে কোকেন কারবারে যোগ রয়েছে রাকেশের সঙ্গী জিতেন্দ্র সিংয়েরও। অন্যদিকে, মাদককাণ্ডে বিজেপি নেতা রাকেশ সিংকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় রাকেশের দুই ছেলেকেও। কোকেন–সহ বিভিন্ন মাদক রাখার অপরাধে আগেই গ্রেফতার হয়েছিলেন বিজেপির যুব মোর্চার নেত্রী পামেলা গোস্বামী। গ্রেফতার হওয়ার পর পামেলার মুখেই প্রথমে উঠে এসেছিল রাকেশ সিংয়ের নাম। মঙ্গলবার বিকেল চারটের সময় রাকেশ সিংকে লালবাজারে হাজিরা দিতে বলে সিআপরিসি-র ১৬০ নম্বর ধারায় নোটিশ পাঠায় কলকাতা পুলিশ। কিন্তু পূর্ব নির্ধারিত কিছু কাজ থাকায় এদিন সশরীরে হাজিরা দিতে পারবেন না বলে সকালেই জানিয়ে দেন বিজেপি নেতা। এরপর থেকে রাকেশ সিংয়ের খোঁজ করতে থাকে পুলিশ। সূত্রের খবর,  প্রথমে মোবাইল ফোনের টাওয়ার লোকেশন দেখে তাঁর অবস্থান জানার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু দুপুর দুটো নাগাদ রাকেশের ফোন দেখা যায় বন্ধ রয়েছে। রাকেশ সিং দিল্লি যাওয়ার কথা বলায়, গতকাল বিমানবন্দরেও মোতায়েন ছিল পুলিশ। পুলিশ সূত্রের খবর, বিমানবন্দর এড়িয়ে জাতীয় সড়ক ধরে ভুবনেশ্বর হয়ে দিল্লি যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন রাকেশ সিং। লালবাজারের গোয়েন্দারা জানতে পারেন বিজেপি নেতা দিল্লি যাননি। তিনি রাজ্যের মধ্যেই কোথাও লুকিয়ে রয়েছেন। গোয়ান্দারা রাকেশের খোঁজে জেলার সব থানাগুলিতেও খবর করতে শুরু করে। এরপর পূর্ব বর্ধমানের গলসিতে হাইওয়ে রোডে নাকা তল্লাশি চালাচ্ছিল পুলিশ। সেইসময় তারা একটা গাড়ি আটকায়। সেই গাড়িতেই ছিলেন বিজেপি নেতা রাকেশ সিং। সঙ্গে তাঁর কেন্দ্রীয় নিরাপত্তারক্ষীরাও ছিলেন। অন্যদিকে বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের বাড়িতে মাদকমামলায় পুলিশের তল্লাশি নিয়ে বিজেপিকে নিশানা করে কটাক্ষ করেছে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস থেকে শুরু করে বাম–কংগ্রেস সব রাজনৈতিক দলই। মাদককাণ্ড নিয়ে ক্রমশ সরগরম হয়ে উঠছে রাজ্য–রাজনীতি।

জনপ্রিয়

Back To Top