আজকালের প্রতিবেদন: কলকাতায় ফের অঙ্গদানের নজির। বছর আঠেরোর তরুণী ব্রেনডেথ হওয়া মনীষা রায়ের ছ’‌দিনের মাথায় মঙ্গলবার কলকাতায় ফের অঙ্গদান হল। এসএসকেএম হাসপাতালে সোমবার রাতে ব্রেনডেথ হয় বছর সাতান্নর প্রৌঢ়া ইতি দেবের। তাঁর দুটি কিডনি দেওয়া হয় এসএসকেএমের দুই রোগীকে। লিভার প্রতিস্থাপন করা হয় অ্যাপোলো গ্লেনিগলস হাসপাতালের এক রোগীকে। মঙ্গলবার অঙ্গগ্রহীতাদের অস্ত্রোপচার সফলভাবে হলেও নিবিড় পর্যবেক্ষণে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 
কলকাতা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গ্রিন করিডরে এসএসকেএম থেকে মাত্র ১১ মিনিটে লিভার নিয়ে অ্যাপোলো পৌঁছোয় চিকিৎসক টিম। বেলা ১২টা ৪০ নাগাদ অ্যাপোলোতে লিভার পৌঁছোনো মাত্রই প্রতিস্থাপনের অস্ত্রোপচার শুরু হয় গ্রহীতার শরীরে। সূত্রের খবর, গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজিস্ট ডাঃ মহেশকুমার গোয়েঙ্কার নেতৃত্বে চলে অস্ত্রোপচার। কাঁচরাপাড়ার বাসিন্দা ৬৩ বছরের লালবাবু রায়কে লিভার দেওয়া হয় বলে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর। গ্রহীতা ২০১৭ সাল থেকে সিরোসিস অফ লিভার ডিজিজে ভুগছিলেন। গ্রহীতাদের আত্মীয়রা অঙ্গদাতার পরিবারের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ থাকবেন বলে জানান। অঙ্গদাতার হার্ট প্রতিস্থাপনযোগ্য ছিল না, তাই নেওয়া হয়নি। 
অঙ্গদাতা ইতি দেব ইছাপুরের মাঝেরপাড়ার বাসিন্দা। কিছুদিন আগে তাঁর সেরিব্রাল স্ট্রোক হয়। তিনি মল্লিকবাজারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিন্তু খরচের বহর পরিবারের পক্ষে সামলানো সম্ভব হচ্ছিল না। ফলে ব্যারাকপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেও শারীরিক অবস্থার খুব একটা উন্নতি না হওয়ায়, অবশেষে এসএসকেএমে ভর্তি করা হয়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ বন্ধ হচ্ছিল না। ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে ভর্তি ছিলেন ১৬ আগস্ট থেকে। ক্রমশই অবনতি হচ্ছিল শরীরের অবস্থা। ব্রেনডেথের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন। পরিবারের সদস্যরা এ কথা জানার পরই অঙ্গদানের ইচ্ছে প্রকাশ করেন। পরিবারের সম্মতি পাওয়ার পরই যাবতীয় প্রক্রিয়া শুরু হয়। পরিবারের সদস্যরা জানান, ব্যারাকপুরের বেরসকারি হাসপাতালে ভর্তি থাকাকালীনই ব্রেনডেথের দিকে এগোচ্ছিলেন। প্রথম থেকেই কোমায় চলে যান। কিন্তু সেখানে অঙ্গ সংগ্রহের (‌রিট্রিভ্যাল) পরিকাঠামো না থাকায়, স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশে বিশেষ ব্যবস্থা করে এসএসকেএমে ভর্তি করা হয়। এখানে ভেন্টিলেশনেই ছিলেন। ব্রেনডেথ ঘোষণার পরই এদিন সকাল থেকে শুরু হয় হার্ভেস্টিং অর্থাৎ অঙ্গ সংগ্রহের প্রক্রিয়া। 

জনপ্রিয়

Back To Top