আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ক্রমে শক্তি বাড়াচ্ছে তিতলি। গতকালই ওড়িশা উপকূল পথের বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছিল। গতকাল ঘোষণা করা হয়, ওড়িশায় বুধবার ও বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকবে স্কুল কলেজ।  ওড়িশা উপকূলের পাঁচটি জেলা থেকে প্রায় তিন লক্ষ লোককে সরিয়ে নিয়ে যায় প্রশাসন। এরপরেই বৃহস্পতিবার ভোরবেলা সকাল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ ওড়িশা উপকূলের গোপালপুর অঞ্চলে আছড়ে পড়ে তিতলি। প্রাথমিক ভাবে খবর পাওয়া গিয়েছে প্রচণ্ড বৃষ্টির সঙ্গে গোপালপুরে প্রায় ১৩০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হওয়ায় বয়ে যায়। উপড়ে যায় বাঁশের খুঁটি, বেশ কয়েকটি মাটির বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। ট্রেনের ওভারহেড তার ছিঁড়ে যাওয়ায় বন্ধ হয়ে যায় রেল পরিষেবা। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সিগন্যালিং ব্যবস্থাও। এদিকে, এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এমনকী প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে বাতিল হয়ে যায় বেশ কয়েকটি ট্রেন। খড়্গপুরের আগে দাঁড়িয়ে পড়েছে ফলকনামা এক্সপ্রেস। ওড়িশা সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, যেকোনও রকম প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য তৈরি আছে ওড়িশা সরকার। পুরী, খুরদা সব একাধিক জেলায় অতিবৃষ্টির কারণে বন্যায় আশঙ্কাও রয়েছে। তেমন পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য প্রশাসন সমস্ত ব্যবস্থা রাখছে বলেও জানানো হয়েছে।
এদিকে ওড়িশার মূল ভূখণ্ডে প্রবেশের পরেই ক্রমে বাংলার দিকে তিতলি এগিয়ে আসতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। সেই কারণেই বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণা, কলকাতা, হাওড়া, হুগলীতে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়ে যাওয়ার সতর্কতা রয়েছে।  

 

 

 

 

গোপালপুরে ঝড়, ছবি: এএন আই

জনপ্রিয়

Back To Top