বিচারপতিদের বিচার্য বিষয় কী?‌ জানতে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে কলকাতা হাইকোর্ট

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এক আদালতের দরজায় অন্য এক আদালত। তাও আবার বিচার চেয়ে। সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন করল কলকাতা হাইকোর্ট। হাই কোর্ট প্রশাসনের তরফে ‘স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন’ (এসএলপি)–এ জানতে চাওয়া হয়েছে— বিচারপতিদের বিচার্য বিষয় কী?‌ তা নির্ধারণ হবে কীভাবে?‌ 
বিশেষ পরিস্থিতিতে হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতির প্রশাসনিক ক্ষমতার কতদূর বিস্তৃত হবে, তারও স্পষ্ট নির্দেশ জানতে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আর্জি জানিয়েছেন কলকাতা হাই কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল। হাই কোর্ট সূত্রের খবর, বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্যের বেঞ্চ থেকে একটি মামলা ডিভিশন বেঞ্চে পাঠানো ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়। তার জেরেই সুপ্রিম কোর্টে এসএলপি দায়ের করেছে হাই কোর্ট প্রশাসন।
বিচারপতি সব্যসাচী ভট্টাচার্য একটি মামলার ভার্চুয়াল শুনানি করছিলেন। সে সময় প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দেয়। এই নিয়ে কলকাতা হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি। হাই কোর্টের ভার্চুয়াল মাধ্যম দেখভালের দায়িত্বে থাকা সেন্ট্রাল প্রজেক্ট কো–অর্ডিনেটরকে শোকজ নোটিস পাঠান। সেই নোটিসের কপি হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি এবং হাই কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলকেও পাঠানো হয়।
পরের দিন ওই মামলাটি বিচারপতি ভট্টাচার্যের অজান্তেই ডিভিশন বেঞ্চে যায়। কিন্তু ডিভিশন বেঞ্চে শুনানির আগেই বিচারপতি ভট্টাচার্য ওই মামলার রায় ঘোষণা করেন। পাশাপাশি ‘অ্যাপিলেট সাইডের’ রুল মেনে মামলাটি স্থানান্তরিত হয়েছে কি না, সে প্রশ্নও তোলেন বিচারপতি ভট্টাচার্য। এই নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ রেজিস্ট্রার জেনারেল।