আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌

গত বছরের গোড়ায় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছিলেন তরুণী। শহর কলকাতায় সেই সব প্রতিবাদের ছবি ভাইরাল হয়। এক বছর পর সে রকমই একটা ছবি ফের ভাইরাল হল। কারণ সেই ছবিতে এডিট করে বদলে দেওয়া হয়েছে প্ল্যাকার্ডের লেখা তথ্য, যা কুরুচিকর।
এবার সেই বিকৃত ছবি ফের ভাইরাল। তা নিয়ে ট্রোলের শিকারও হলেন দীপান্বিতা পাল। তার পর নিজেই ফেসবুকের দেওয়ালে তীব্র প্রতিবাদ জানালেন। ছবিটি নিয়ে তথ্য যাচাই করেছিল সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে। এক বছর আগে প্রতিবাদের সেই ছবি খুঁজে বের করল তারা। কলকাতার নিউ মার্কেট চত্বরে হয়েছিল সিএএ–বিরোধী প্রতিবাদ।
দীপান্বিতার ছবিও পাওয়া গিয়েছে। সেই ছবিতে তাঁর গলায় ঝুলছে প্ল্যাকার্ড। তাতে লেখা ছিল, ‘‌শাড়ি কাপড় খুলব, ডকুমেন্টস দেব না।’‌ আর এই ছবি এডিট করেই দীপান্বিতার প্ল্যাকার্ডে বসিয়ে দেওয়া হল, ‘‌শাড়ি কাপড় খুলে দেব তাও ডকুমেন্টস দেব না।’‌ 
এই নিয়ে দীপান্বিতা নিজের ওয়ালে লিখেছেন, ‘‌আসলে ধর্ষকের চোখ তো, স্বাভাবিকভাবেই ‘‌না’‌ কে ‘‌হ্যাঁ’‌ দেখেছে। ভারতে সিএএ–এনআরসি–এনপিআর বিরোধী আন্দোলনের অনেক আগে থেকেই এদেশের রূপান্তরকামী মানুষজন তৎকালীন ট্রান্সজেন্ডার বিল এর বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলন করে চলেছেন। অধুনা ট্রান্সজেন্ডার বিল জানায় যে রূপান্তরকামী মানুষজন দের এবার সরকারি প্রতিনিধি ও ডাক্তারদের সামনে জামাকাপড় খুলে প্রমাণ করতে হবে যে তাঁরা ট্রান্সজেন্ডার। ভাবতে পারবেন আমি বা আপনি একদল অচেনা মানুষের সামনে নগ্ন অবস্থায় অবনত হয়ে দাঁড়িয়ে আছি যাতে তাঁরা শরীর ছুঁয়ে যাচাই করে নিতে পারে আমরা ‘‌ভান’‌ করছি কিনা? পারবেন না, কারণ আপনাদের শরীর দামি, রাষ্ট্রের হাতের খেলনা নয় (এখনও অবধি)। প্রথমত যে রাষ্ট্র মনে করে তার নাগরিকদের উলঙ্গ করে, তাঁর শরীর ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখে তাকে তাঁর লিঙ্গপরিচয় নির্ধারণ করে দেবে, সেই রাষ্ট্র ফ্যাসিবাদী ও ধর্ষকামী।.‌.‌’‌ 

ছবি:‌ দীপান্বিতার ফেসবুক পেজ থেকে

জনপ্রিয়

Back To Top