অলোকপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়: ভাল বই হারায় না। ফিরে ফিরে আসে। এবং কখনও চমকে দেয় পাঠককে। নরেন্দ্র দেবের প্রধান পরিচয় ছিল তিনি কবি। তাঁর কন্যাও নানান ভূমিকায় বিখ্যাত। তবুও সেই নবনীতা দেবসেনের প্রধান পরিচয়ও কবি। অনেকেরই অজানা, ৮৩ বছর আগে চলচ্চিত্র নির্মাণের কৃত–‌কৌশল নিয়ে একটি বই লিখেছিলেন নরেন্দ্র দেব। বইটির নাম ‘‌সিনেমা’‌। গুরুদাস চট্টোপাধ্যায় অ্যান্ড সন্স ছেপেছিল কবির লেখা এই বই। ৮৩ বছর আগে নতুন এই মাধ্যমটির সঙ্গে পাঠকদের পরিচয় করাতে গিয়ে সিনেমার প্রচলিত বহু শব্দকেও সুন্দরভাবে বাংলায় নিয়ে এসেছিলেন তিনি। ‘‌কাট’‌ তাঁর ভাষায় ‘‌ছেদ’‌, ‘‌ফেড ইন’‌ হল ‘বিকাশ’‌, ‘‌ফেড আউট হয়েছে ‘‌বিলোপ’‌। সেই বইটির উজ্জ্বল উদ্ধার হল এবারের বইমেলায়। ‘‌লালমাটি’‌র নিমাই গড়াই খুব যত্ন নিয়ে প্রকাশ করেছেন— ‘‌সিনেমা:‌ ছায়ার মায়ার বিচিত্র রহস্য’‌। এই বইয়ে সংযোজিত হয়েছে প্রাসঙ্গিক আরও কিছু লেখা। প্রাক্‌কথনে নবনীতা দেবসেন এবং তরুণ মজুমদার। বহু বছর আগে এই বই পড়ে সত্যজিৎ রায় বলেছিলেন, ‘‌এই বইয়ের ঐতিহাসিক মূল্য অপরিসীম এবং সেই বই আমি আমার সংগ্রহে যত্ন করে রেখে দিয়েছি।’‌ শনিবারের বইমেলার রং পাল্টে দিল নরেন্দ্র দেবের ‘‌সিনেমা’‌। তার আগে, দুপুর দুটোতেও বইমেলার রঙ ছিল ম্লান। বাসদুর্ঘটনায় দুই যুবকের মৃত্যু ঘিরে চিংড়িঘাটায় বহুক্ষণ বন্ধ ছিল যান চলাচল। রুদ্ধ ছিল বাইপাস। তাই শুরুতে বইমেলা ছিল খাঁ ‌খাঁ। বিকেল থেকে অবশ্য ভিড় ক্রমশ বাড়তে থাকে। তার আগেই বইমেলা কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এদিন মেলার সময়সীমা এক ঘণ্টা বাড়িয়ে ন‌টা পর্যন্ত করার। ফলে, যাঁরা দেরিতে বইমেলায় ঢুকেছেন, তাঁরা নিশ্চিন্তে বাড়িয়ে দিলেন আড্ডার সময়সীমাও।
আর একটি গুরুত্বপূর্ণ বই মেলার মাঠে আবিষ্কৃত হল, ‘‌প্রকৃতি ভালপাহাড়’‌–‌এর ছোট্ট স্টলে। ধূর্জটিপ্রসাদ চট্টোপাধ্যায়ের ‌‘‌সাঁওতালি–‌বাংলা অভিধান’‌। ইউনিক বুক সেন্টার প্রকাশিত এই বইয়ের পাতায় পাতায় স্পষ্ট বাংলার ওপর সাঁওতালি ভাষার প্রভাব কতটা গভীর। 
বইমেলায় এদিন ‘‌প্রাগমা’‌ থেকে প্রকাশিত হল সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যের রাজনৈতিক ও আর্থ–‌সামাজিক বিষয়ের ওপর লেখা নানান প্রবন্ধ নিয়ে ‘ প্রবন্ধ ‌সঙ্কলন’‌। লেখকের উপস্থিতিতে নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলনের স্টলে বইটির আনুষ্ঠানিক প্রকাশ হল এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি ঈশা মহম্মদের হাতে। 
ড.‌ কৃষ্ণা বক্সীর ‘‌কীর্তনগানের ইতিহাস’‌ প্রকাশিত হয়েছে সংস্কৃত পুস্তক ভাণ্ডার থেকে পুরীপ্রিয়া কুণ্ডুর সম্পাদনায়। কবি শান্তি সিংহের ‘‌শ্রীরামকৃষ্ণ ও গিরিশচন্দ্র’‌ গবেষণালব্ধ বই। প্রকাশক গিরিজা লাইব্রেরি। ডাক্তার অমিতাভ ভট্টাচার্য ‘‌ওষুধ খেয়ে অসুখ’‌ লিখেই থামেননি, সাতটি শ্রুতিনাটক নিয়ে ‘সপ্ত শ্রুতিনাট্য’‌ও উপহার‌ দিয়েছেন পাঠকদের। প্রকাশক দে’‌জ।
লিটল ম্যাগাজিনের টেবিলে বেশ সরব ‘‌জারি বোবাযুদ্ধ’‌র নতুন সংখ্যা। প্রচ্ছদে পিকাসোর ভাস্কর্য আর ভেতরে মার্কেজ–‌বোর্হেসদের ভাষার স্থাপত্য। ‘‌গল্পসরণী’‌ এবার শ্যামল গঙ্গোপাধ্যায়কে সর্বার্থেই নিবেদিত। ‘‌পাতাবাহার’‌ থেকে প্রকাশিত সুজয় ঘোষের ‘‌মশালচি’‌ বেশ ‘সুস্বাদু’‌ বই। বিভূতিভূষণের গল্প, উপন্যাস, দিনলিপি ঘেঁটে নানান রন্ধনবিধির সন্ধান দিয়েছে ‘‌মশালচি’‌। অরুণাচল প্রদেশের প্যাভিলিয়ন থেকে রমেন্দ্রনাথ কোলের ‘‌উদিত সূর্যের দেশ’‌–‌এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন ওয়াই ডি থনসি। অরুণাচল নিয়ে এটি এক গুরুত্বপূর্ণ উপহার।
‌‌এদিন বইমেলায় পালিত হল ‘‌বাংলাদেশ দিবস’‌। এসবিআই প্রেক্ষাগৃহে বাংলাদেশের সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এবং রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় ছিলেন পাশাপাশি। আরও ছিলেন বাংলাদেশের প্রতিমন্ত্রী বেগম মেহের আফরোজ চুমকি, ইব্রাহিম হোসেন খান, কলকাতায় বাংলাদেশের উপ–‌হাইকমিশনার তৌফিক জামান প্রমুখ। ‘‌বাংলাদেশের সাহিত্যে মুক্তিযুদ্ধ’ নিয়ে এক মনোজ্ঞ আলোচনার পরে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এদিন দেব সাহিত্য কুটিরের উদ্যোগে ‘‌শুকতারা’–‌র কয়েকটি সঙ্কলন গ্রন্থের প্রকাশ অনুষ্ঠানে ছিলেন নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, বুদ্ধদেব গুহ, সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়, সুবোধ সরকার, দেবাশিস কুমার, সতীনাথ মুখোপাধ্যায় প্রমুখ। স্বাগত ভাষণ দেন পত্রিকার সম্পাদক রূপা মজুমদার।
ঈশানের ছবির দাবি
‘‌আজকাল’‌–‌এর স্লোগান–‌ ‘‌ভাল বই পড়বই’‌ তো শুধু কথার কথা নয়, আজকাল প্যাভিলিয়নে ভাল বই বিস্তর। সেখানে শঙ্ঘ ঘোষের ‘‌ছেঁড়া ক্যাম্বিসের ব্যাগ’ থেকে ‌অশোক দাশগুপ্তের ‘‌নেপথ্য ভাষণ’‌, তুষার কাঞ্জিলালের ‘‌পথের পাঠশালা’‌ থেকে সন্দীপন চট্টোপাধ্যায়ের ‘‌উপন্যাস সমগ্র’‌ পাঠকদের আগ্রহের শীর্ষে। কোন বই ছেড়ে কোন বই– ভাবতে হচ্ছে পাঠককে।
বইমেলায় আজকাল–এর দেওয়াল জুড়ে এবারও নানান আকর্ষক ছবি। বিশ্বকাপের দরজা থেকে ফিরে–‌আসা ঝুলন গোস্বামীদের ছবি এবং ক্যাপশন– ‘‌এত কাছে, এত দূরে’‌ মন খারাপ করে দেয়। সেখানে দাঁড়িয়ে চন্দননগরের ঋত্বিক বসু দাবি জানালেন, এর পাশে ঈশান পোড়েলের ছবি চাই। এই দিনই অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে (‌‌চন্দননগরের)‌ ঈশানদের ভারত অনূর্ধ্ব উনিশ বিশ্বকাপ ক্রিকেট জিতে নিয়েছে। ঋত্বিকের দাবি, আজকালের দেওয়ালে ঝুলন গোস্বামীদের পাশেই চাই ঈশানদের ছবি। দাবি যে সঙ্গত, কোনও সংশয় নেই।‌‌      ‌‌

 

সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্যের ‘‌প্রবন্ধ‌ সংকলন’‌ প্রকাশ করছেন এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি ঈশা মহম্মদ। প্রকাশক‌ প্রাগমা। নিখিল ভারত বঙ্গ সাহিত্য সম্মেলনের স্টলে। বইমেলায়। শনিবার।‌

জনপ্রিয়

Back To Top