আজকালের প্রতিবেদন: দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটল বিধাননগরে। সোমবার রাতে একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন সপরিবার গৃহকর্তা। ঘণ্টা চারেক পরে ফিরে এসে দেখেন বাড়ি লন্ডভন্ড। উধাও সোনার গয়না, টাকা–সহ মূল্যবান জিনিসপত্র। ছাদের দরজা দিয়ে বাড়ির ভেতরে ঢুকেছিল দুষ্কৃতীরা। সি ই ব্লকে তপন সোমের বাড়ির ঘটনা। বিধাননগর উত্তর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে। রাতেই তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। মঙ্গলবার যান বিধাননগর কমিশনারেটের গোয়েন্দা বিভাগের আধিকারিকরা। পুলিশ জানিয়েছে, মোবাইল ফোনের দোকান আছে তপনবাবুর। রাত ১টা নাগাদ বাড়ি ফিরে পরিবারের লোকজন প্রথমে কিছু বুঝতে পারেননি। পরে আলমারিতে থাকা একটি জিনিস দরজার কাছে পড়ে থাকায় সন্দেহ হয় পরিবারের। তখন আলমারি খুলে দেখা যায় ৬০ গ্রাম সোনা ও নগদ ৬০ হাজার টাকা নেই। পরে জানা যায়, আরও কিছু জিনিস খোয়া গেছে। এর পর পুলিশকে ঘটনার কথা জানায় পরিবার। প্রাথমিকভাবে পরিচিত কেউ ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বলে অনুমান তদন্তকারীদের। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে সন্দেহভাজনদের একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এর ভিত্তিতে তদন্ত চলছে। ঘটনার বিষয়ে তপন সোম বলেন, বাড়িতে কেউ ছিল না। রাত সাড়ে ৮টা–পৌনে ৯টা নাগাদ আমরা বাড়ি থেকে বেরোই। একটি অনুষ্ঠান ছিল। ফিরে এসে দেখি, কিছু লোকজন বাড়ির ভেতরে ঢুকে জিনিসপত্র নিয়ে গেছে। সোনা–সহ অলঙ্কার, ক্যামেরা, নগদ টাকা ও কয়েক লক্ষ টাকার জিনিস খোয়া গেছে। গত ৪০ বছর ধরে আমি বিধাননগরে আছি। বাড়ি খোলা থাকলেও আগে এই ধরনের ঘটনা ঘটেনি। ছাদের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকেছিল দুষ্কৃতীরা। এদিকে পুলিশের দাবি, ছাদের দরজা ভাঙা হয়নি। দরজা ভেজানো ছিল। ওই বাড়িতে নির্মাণকাজ চলছিল। এখনও ভারা বেঁধে কাজ চলছে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top