সোমনাথ মণ্ডল: সিআইডি–‌‌র পর এবার তদন্তে কলকাতা পুলিসও। তোলাবাজির মামলার পর এবার মাদুরদহের ফ্ল্যাটে ‌অসৎভাবে টাকা লুকিয়ে রাখার অভিযোগে মামলা হল আলিপুর আদালতে। বিচারকের অনুমতিতেই এই মামলার তদন্ত শুরু করল কলকাতা পুলিস।  
সম্প্রতি ইএম বাইপাসের মাদুরদহের ফ্ল্যাট থেকে প্রায় আড়াই কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে। এই তল্লাশি নিয়ে ইতিমধ্যেই সরব প্রাক্তন আইপিএস ভারতী ঘোষের স্বামী এম এ ভি রাজু। অন্যদিকে, ওই আবাসনের বাসিন্দা শুভজিৎ চক্রবর্তীও রাজুর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। শুভজিতের দাবি, আসবাবপত্র রাখার জন্য নাকি ফ্ল্যাটটি দিয়েছিলেন৷ সেখানে টাকা রাখা ছিল বলে তাঁর জানা ছিল না। আনন্দপুর থানায় এ নিয়ে শুধু অভিযোগই দায়ের হয়নি, এবার মামলাও শুরু হল (‌ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২৪ ধারায়)‌। ঘটনাচক্রে এই টাকার উৎসের খোঁজ শুরু করল কলকাতা পুলিস। 
এখন প্রশ্ন, এই টাকা সেখানে কে রাখল? কার টাকা‌? কবে থেকে এখানে এই বিপুল পরিমাণ টাকা মজুত করা হয়েছিল‌? এই সব প্রশ্নেরই উত্তর মিলছে না।
শুভজিতের অভিযোগের ভিত্তিতেই আলিপুর আদালতে মামলা হয়েছে বলে জানা গেছে। এবার নতুন করে এই মামলার তদন্ত শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যেই 
পুলিস অভিযোগ হওয়ার পর বিষয়টি দেখছে। যে ফ্ল্যাটে টাকা পাওয়া গেছে সেটি কার নাম রয়েছে তা দেখা হচ্ছে৷ তোলাবাজি মামলায় তল্লাশির বিরুদ্ধে সিআইডি‌র ৭ অফিসার, পদস্থ কর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে–ছিলেন প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষের স্বামী এম এ ভি রাজু৷ এবার তাঁর বিরুদ্ধেই পাল্টা অভিযোগ দায়ের হল আনন্দপুর থানায়৷  ইএম বাইপাসের মাদুরদহের একটি ফ্ল্যাটের আলমারি ভেঙে সেই টাকা পাওয়া গেছে৷ বুধবার মাদুরদহের ওই ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালায় সিআইডি৷ নগদে ২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়। যেগুলির সবই ১০০ এবং ৫০০ টাকার নোট। সিআইডি–‌র ডিআইজি (অপারেশনস) নিশাত পারভেজ বলেন, ‘‌মাদুরদহের ওই আবাসনের কেয়ারটেকার রাজমঙ্গল সিংকে রবিবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়। এদিন দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তল্লাশি চালিয়ে একটি ফ্ল্যাট থেকে নগদ ২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা পাওয়া গেছে। আমরা যেমন তদন্ত করছি করব, কলকাতা পুলিসও ওদের মতো তদন্ত চালাবে।’‌
রাজমঙ্গলকে জেরা করে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সারাদিন অভিযান চালিয়ে একটি ফ্ল্যাটের আলমারি ভেঙে ওই বিপুল নগদ উদ্ধার করা হয়েছে বলেও তিনি জানিয়েছেন। এই তল্লাশি নিয়ে ভারতী ঘোষ অডিও বার্তায় সরব হয়েছেন। এই তল্লাশি নিয়েই তিনি প্রশ্ন তুলেছেন। যদিও সিআইডি–‌র দাবি, নিয়ম মেনেই এই এই অভিযান চলছে।   
‌‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top