Banking: বাংলার মাটিতে ব্যাঙ্কিং পরিষেবা দিতে হবে বাংলায়, হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা বাংলা পক্ষর  

আজকাল ওয়েবডেস্ক: ইংরেজি এবং হিন্দি ভাষায় সবাইকে দক্ষ হতে হবে এমন কোনও আইন নেই। অথচ ব্যাঙ্কিং সেক্টরে এর বাইরে কোনও ভাষায় সেভাবে কাজ হয় না। গ্রামাঞ্চলের প্রান্তিক মানুষগুলো বিশেষ করে এই কারণে সমস্যার সম্মুখীন হন। এগিয়ে এল বাংলা পক্ষ। বাঙালিদের স্বার্থরক্ষায় নিয়োজিত এই সংগঠন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির আদালতে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করল। তাদের দাবি, বাংলার মাটিতে বাংলা ভাষায় পরিষেবা দেওয়ার ব্যবস্থা অবশ্যই রাখতে হবে।   

আরও পড়ুন: এক অধ্যায়ের শেষ, শিল্পী ফুটবলারকে হারাল কলকাতা ময়দান  


রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটা ব্যাঙ্ককে সেই রাজ্যের ভাষাতেও পরিষেবা দিতে হবে। অর্থাৎ বাংলার সমস্ত ব্যাংকে বাংলা পরিষেবা দেওয়াই আইন।

অথচ বাংলায় ব্যবসা করা অধিকাংশ ব্যাঙ্কই বাংলা ভাষায় পরিষেবা দেয় না। ২০১১-র আদমসুমারি অনুযায়ী বাংলায় ৮৬ শতাংশ বাঙালি এবং বাঙালিদের মধ্যে ৮২ শতাংশ বাঙালি বাংলা ছাড়া অন্য ভাষা জানে না। ব্যাঙ্কগুলো শুধুমাত্র হিন্দি ও ইংরেজিতে পরিষেবা দেয়, সমস্যায় পড়ে সাধারণ বাঙালি। এরই তীব্র প্রতিবাদ জানাল বাংলা পক্ষ। দ্বারস্থ হল হাইকোর্টের। প্রসঙ্গত, গত চার বছর ধরে প্রায় ৮০০ ব্যাঙ্কে একই মর্মে ডেপুটেশন দিয়েছে সংগঠনটি।
বাংলার মাটিতে যাতে বাংলা ভাষায় ব্যাঙ্কিং পরিষেবা পাওয়া যায়, সেই দাবিতে আজ ১৭ ফেব্রুয়ারি বাংলা পক্ষর তরফে শীর্ষ পরিষদ সদস্য কৌশিক মাইতি জনস্বার্থ মামলা দাখিল করলেন কলকাতা হাইকোর্টে প্রধান বিচারপতির কোর্টে। বাংলা পক্ষর আইনি দল এই বিষয়ে কাজ করেছে, নেতৃত্বে হাইকোর্টের আইনজীবী প্রসেনজিৎ দেবনাথ। আইনজীবী প্রসেনজিৎ দেবনাথ, সাগ্নিক ভট্টাচার্য ও পুনম বসু এই মামলা দায়ের করেন। আদালতে উপস্থিত ছিলেন বাংলা পক্ষর সাধারণ সম্পাদক গর্গ চট্টোপাধ্যায়, শীর্ষ পরিষদ সদস্য কৌশিক মাইতি এবং অন্যান্যরা।
 

আকর্ষণীয় খবর