আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে ছাই বাগবাজার ব্রিজ সংলগ্ন বস্তি এলাকা। বুধবার সন্ধে পৌনে সাতটা নাগাদ আগুন লাগে। দমকলের ২৫ টি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজে নেমে যায়। কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও পুড়ে ছাই হয়ে গেছে অনেকের স্বপ্ন। যেমন সবিতা পাত্র। দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্রী। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল তাঁর। থাকত ওই বস্তিতেই। দারিদ্রের ছাপ চোখেমুখে। তবুও সবিতা স্বপ্ন দেখেছিল একদিন অনেক বড় হবে। কিন্তু একটা সন্ধে সবকিছু ওলটপালট করে দিয়েছে। আগুন হয়ত নিভেছে। শুধু পুড়ে খাঁক হয়ে গিয়েছে সবিতার স্বপ্নগুলো। 
বুধবার আগুন লাগার কিছুক্ষণ আগেই টিউশনি পড়তে চলে যায় সবিতা। ফিরে এসে প্রথমেই মা–বাবার খোঁজ শুরু করে দেয় ওই তরুণী। তাঁরা বেঁচে আছে দেখে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেও চোখে অন্ধকার দেখতে থাকে সবিতা। কারণ সামনে যে বড় পরীক্ষা। বইখাতাগুলি সব কি পুড়ে গেল! দাঁতে দাঁত চেপে সারারাত অপেক্ষা করেছিল সে। সকাল হতেই সবিতা চলে যায় ওই ধ্বংসস্তুপে। হাতড়ে দেখতে থাকে পোড়া কাগজ। কিন্তু বিধিবাম। সবিতা বুঝতে পারে ব্যাগের বইগুলি ছাড়া আর কিছুই অবশিষ্ট নেই। এতদিন প্রস্তুতি নিয়েছিল যে খাতাগুলিতে, সেগুলিও পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী এদিন এসেছিলেন এলাকা পরিদর্শনে। পুনর্বাসনের আশ্বাস দিয়ে গিয়েছেন তিনি। সবটাই হয়তো আগের মতো হয়ে যাবে। তবে সময় লাগবে। কিন্তু সবিতা জানে, ওঁর হাতে বেশি সময় নেই। সামনেই যে উচ্চমাধ্যমিক।

জনপ্রিয়

Back To Top