আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ একসঙ্গে শুরু স্কুলজীবন। একসঙ্গে ময়দানে পা রাখা। একসঙ্গে মোহনবাগান প্রশাসনে আসা। টুটু–অঞ্জন জুটি ময়দানে মিথ হয়ে গিয়েছিল। দীর্ঘদিন বাগান সচিবের দায়িত্ব সামলেছিলেন। ২০১৮–য় বাগানের নির্বাচন থেকে তিনি সরে দাঁড়িয়েছিলেন। লড়তে চাননি প্রিয় বন্ধুর বিরুদ্ধে। এবার প্রিয় বন্ধু টুটুকে ছেড়ে চলে গেলেন। শুক্রবার রাত তিনটে দশ নাগাদ বাইপাসের ধারে এক বেসরকারি হাসপাতালে মারা গেলেন বাগানের প্রাক্তন সচিব অঞ্জন কুমার মিত্র। 
পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সকাল সাড়ে আটটায় অ্যাপোলো হাসপাতাল থেকে অঞ্জনের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে বাড়িতে। ট্যাংরায় বাসভবনে মরদেহ শায়িত থাকবে ৯টা থেকে ১১টা অবধি। এরপর দুপুর ১২ টায় নিয়ে আসা হবে প্রিয় মোহনবাগানে। সেখানে আড়াইটে পর্যন্ত শায়িত থাকবে অঞ্জনের মরদেহ। ফুটবলার থেকে সদস্য, সমর্থকরা সেখানে প্রাক্তন সচিবকে শ্রদ্ধা জানাতে পারবেন। দুপুর সাড়ে তিনটেয় কেওড়াতলা মহাশ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। 
দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। একাধিকবার হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। এবারও বেশ কিছুদিন ধরেই ভর্তি ছিলেন বাইপাস লাগোয়া হাসপাতালে। অবস্থা ছিল সঙ্কটজনক। ডায়ালিসিস চলছিল। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। 
২৩ বছর মোহনবাগান ক্লাবের প্রশাসনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অঞ্জন। ১৯৯৫ সালে অর্থ সচিব হিসেবে পথ চলা শুরু। ২০১৮ সালে সচিব পদ থেকেই ক্লাব প্রশাসন থেকে বিদায় নেন। তাঁর সময়ে ক্লাব সর্বভারতীয় স্তরে অনেক সাফল্য পেয়েছে। অঞ্জন মিত্রের প্রয়াণে মোহনবাগানে একটা যুগের অবসান হল। তাঁর মৃত্যুতে বাগানে শোকের ছায়া। বাতিল করা হয়েছে আজকের অনুশীলনও। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top