আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ আমফান এখনও আছড়ে পড়েনি। তার আগেই বিভিন্ন জায়গা থেকে ঝড়ের দাপটে ক্ষয়ক্ষতির খবর আসতে শুরু করেছে। কোথাও গাছ ভেঙে পড়েছে। কোথাও আবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কাঁচাবাড়ি। দুর্যোগের হাত থেকে রক্ষা পেতে উপকূল এলাকা থেকে আগেই নিরাপদ দূরত্বে সরে গিয়েছেন সাধারণ মানুষ। তবে এখনও পর্যন্ত প্রাণহানির কোনও খবর নেই।
আমফানের প্রভাবে মঙ্গলবার থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়। বুধবার সকালে পূর্ব মেদিনীপুর, তাজপুর, বকখালি, হিঙ্গলগঞ্জ, মন্দারমণি এবং দিঘা–সহ বেশ কিছু এলাকায় ঝড় বইতে শুরু করে। প্রবল ঝড়ে বকখালিতে বেশ কিছু গাছ উপড়ে গিয়েছে। রাস্তার উপর গাছ ভেঙে পড়ে দিঘা এবং কলকাতাতেও। তবে কলকাতায় রাস্তা থেকে তড়িঘড়ি ভেঙে পড়া গাছ সরিয়ে দিয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। প্রবল ঝড়ে গাছ ভেঙে পড়েছে ফ্রেজারগঞ্জেও। বেশ কিছু কাঁচাবাড়ির চাল উড়ে গিয়েছে কাকদ্বীপে।
গতি বাড়িয়ে স্থলভাগের দিকে ছুটে আসছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। বুধবার ৪ টে থেকে ৬ টার মধ্যে তা বাংলায় আছড়ে পড়বে। 

ফাইল ছবি


 

জনপ্রিয়

Back To Top