আজকালের প্রতিবেদন: বিজেপি–‌র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক ব্যানার্জি। ব্রিগেড উপলক্ষে শুক্রবার শ্যামবাজারে বিশাল জনসভার মঞ্চে দাঁড়িয়ে অভিষেক বলেন, ‘‌অমিত শাহ, আপনি বলুন বাংলায় ৪২টা আসনের মধ্যে কোন আসনে দাঁড়াবেন?‌ আমি একাই আপনাকে হারিয়ে দেব।’‌ উত্তর কলকাতা জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের ডাকে এই সভার মঞ্চ থেকে সুদীপ ব্যানার্জি, ফিরহাদ হাকিম–‌সহ প্রায় প্রত্যেকেই অভিষেকের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সুদীপ বলেন, ‘‌আজকের এই উত্তর কলকাতার মঞ্চ থেকে অভিষেককে জননেতা ঘোষণা করা হল।’‌ মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘‌আমি অভিষেকের মধ্যে বাংলার ভবিষ্যৎ দেখতে পাই। মমতার আদর্শ অভিষেকের মধ্যে আছে। অভিষেক তুমি লড়াই করো, আমরা তোমার সঙ্গে আছি।’‌ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সম্পর্কে প্রায় সকলেই বলেন, আগামী দিনে তিনিই হবেন প্রধানমন্ত্রী। সুদীপ বলেন, ‘‌মমতার হাতে দেশের ভার তুলে দিলে ক্ষতি কী?‌’‌ ফিরহাদ বলেন, ‘‌বাঙালি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মমতাকে দেখতে চাই। ব্রিগেড থেকে সেই আওয়াজ তুলতে হবে। তিনি প্রধানমন্ত্রী হলে, গোটা ভারতে ছড়িয়ে যাবে কন্যাশ্রী, সবুজ সাথীর মতো প্রকল্পগুলি।’‌
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দাড়িওলা প্রধানমন্ত্রী বলে কটাক্ষ করেন ফিরহাদ। সাধন পান্ডে বলেন, ‘‌শ্যামবাজারে ঐতিহাসিক সভা হল। ভারতের রাজনীতিতে পরিবর্তন আসছে। আগামী দিনে মমতাই নিয়ন্ত্রণশক্তি হবে। তাঁর ফর্মুলা ১:‌১ এখন সকলেই মেনে নিচ্ছে।’‌ সুব্রত বক্সি বলেন, ১৯–‌এর অভিযান ব্রিগেডের ময়দান। আগামী দিনে মমতার নেতৃত্বেই দিল্লি অভিযান হবে। ব্রিগেডে অন্যান্য রাজ্যের তাবড় তাবড় নেতা উপস্থিত থাকবেন।’‌
জিঞ্জিরাবাজার থেকে শ্যামবাজারে আসেন অভিষেক। মঞ্চে আসার পর চারিদিক থেকে ওঠে স্লোগান। তাঁকে সংবর্ধনাও দেওয়া হয়। অভিষেক বলেন, ‘‌১৯৯৭ সালের ২৯ ডিসেম্বর মমতা ব্যানার্জি এই শ্যামবাজারে প্রথম সভা করেন। এটা  হচ্ছে প্রতিবাদের জায়গা। বিজেপি–‌র একনায়কতন্ত্রের কয়েকজন নেতা দেশকে বিক্রি করতে চাইছেন। মমতার প্রতিবাদ এর বিরুদ্ধে। এদিনও অভিষেক নেতাজির সঙ্গে মমতার তুলনা করেন। ব্রিগেডে কারা কারা আসছেন তাও জানিয়ে দেন অভিষেক।‌ এদিন সভায় উপস্থিত ছিলেন শশী পাঁজা, তাপস রায়, অতীন ঘোষ, শান্তনু সেন, পরেশ পাল, মদন মিত্র, জীবন সাহা, অলোক দাস, নয়না ব্যানার্জি, মালা সাহা, স্বর্ণকমল সাহা, সৌম্য বক্সি, অলকানন্দা দাস। মঞ্চে এদিন ছিলেন কুণাল ঘোষ। অন্যদের সঙ্গে অভিষেক তাঁকেও ধন্যবাদ জানান।‌

জিঞ্জিরাবাজার–‌বাটানগর উড়ালসেতু উদ্বোধনের পর ফিরহাদ হাকিম, অভিষেক ব্যানার্জি। ছবি:‌ রনি রায় 

জনপ্রিয়

Back To Top