আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌ক্লাসে পড়া পারেনি ছাত্র। এই অভিযোগে ছাত্রকে মারধর করা শুরু করেন শিক্ষক। কিল, ঘুসি থেকে শুরু করে বুকে পেটে লাথিও মারা হয়। দেওয়ালে মাথা ঠুকে দেওয়াতেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে ওই দশম শ্রেনীর ওই ছাত্র। তারপর তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ারও প্রয়োজন মনে করেনি স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলেই প্রাণ হারায় ছাত্র। সহপাঠীকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে পরের দিন গোটা স্কুল জ্বালিয়ে দিল বন্ধুরা। এমন এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের লাহোরে গুলশান–ই–রবি অঞ্চলের আমেরিকান লাইসটাফ নামক একটি স্কুলে। ঘটনাটি রীতিমত সারা ফেলেছে গোটা পাকিস্তানে। হাফিস হুনাইন বিলাল নামে দশম শ্রেনীর ওই ছাত্রের মৃত্যুর পর তার পরিবার টুইটারে একটি পোস্ট দেওয়াতেই সামনে আসে গোটা ঘটনাটি। সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ক্লাসে পড়া না পারার অভিযোগেই পিটিয়ে মারা হয়েছে ১৬ বছরের ওই ছাত্রকে। তাতেই স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে স্কুলে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে বিলালের বন্ধুরা। দমকল বাহিনী ডেকে কোনও মতে আগুন নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম হয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলে আগুন লাগানোর ঘটনায় জড়িত কয়েকজন ছাত্রতে গ্রেপ্তারও করা হয়। বিলালের বাবা থানা অভিযোগ করে জানান, স্কুলে ঠিক সময়ে টাকা দিতে না পারার জন্য ছেলেকে বেশ কয়েকদিন ধরেই মারধর করছিলেন স্কুলের শিক্ষকরা। গোটা ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন পাকিস্তানের টুইটার ব্যবহারকারীরা। তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন স্কুল শিক্ষা মন্ত্রী মুরাদ রাস। জানিয়েছেন, অভিযোগ প্রমাণিত হলে কঠোর সাজা হবে স্কুল শিক্ষকের। 

জনপ্রিয়

Back To Top