আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌রবিবার শ্রীলঙ্কায় পর পর বিস্ফোরণের ঘটনায় কয়েকজন মহিলারাও হাত ছিল বলে তদন্তে উঠে এসেছে। বুধবার এই তথ্য জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার উপ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রুয়ান বিজেবর্ধন। শ্রীলঙ্কার পুরনো গির্জা ও বিলাসবহুল হোটেলে বিস্ফোরণের ঘটনায় ইতিমধ্যেই মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫৯ জন হয়েছে। পুলিস এই ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে আরও ১৮ জনকে গ্রেপ্তারও করেছে। 
ভয়াবহ সন্ত্রাসবাদী হামলার জেরে বোরখা নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে শ্রীলঙ্কা সরকার। সরকারি স্তরে এর মধ্যেই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে মসজিদ কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও এ বিষয়ে কথা বলে নিতে চায় সরকার। সূত্রের খবর, ইস্টার সানডের দিন ধারাবাহিক বিস্ফোরণে কয়েক জন মহিলারও ভূমিকা ছিল বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। আত্মঘাতী হামলাকারীদের মধ্যে কিছু মহিলা হামলাকারী ছিল বলে তদন্তে জানা গিয়েছে। তার জন্যই বোরখা নিষিদ্ধ করার পদক্ষেপ নিতে চলেছে শ্রীলঙ্কা সরকার। প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপলা সিরিসেনার সঙ্গে মন্ত্রিসভার সদস্যদেরও সোমবার বোরখা নিয়ে একপ্রস্থ আলোচনা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, ১৯৯০ সালের আগে শ্রীলঙ্কায় মুসলিম মহিলাদের মধ্যে বোরখা ও নিকাবের প্রচলন তেমন ভাবে ছিল না। তদন্তকারীদের ধারণা, বোরখার আড়ালে হামলায় জড়িতরা পালিয়ে যেতে পারে। সে সুযোগ তারা যাতে না পায়, তার জন্য এতটা তাড়াহুড়ো করা হচ্ছে। 

জনপ্রিয়

Back To Top