আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০২০ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদের জন্য প্রার্থী হিসেবে লড়তে ইচ্ছুক তিনি। শনিবার একটি সাক্ষাৎকারে একথা জানালেন মার্কিন হিন্দু, হাওয়াইয়ের ডেমোক্র‌্যাট সেনেটর তুলসী গ্যাবার্ড। আগামী সপ্তাহেই এব্যাপারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করবেন বলে জানালেন তুলসী। তুলসী বললেন, অপরাধ আইন সংস্কার, আবহাওয়া এবং স্বাস্থ্য পরিষেবাই ভোটে তাঁর ইস্যু হবে। তবে তাঁর কাছে মূল ইস্যু হবে বিশ্বশান্তি এবং বিশ্বের নানান প্রান্তে ঘটে চলা যুদ্ধ থামাতে আলোচনা। 
৩৭ বছরের তুলসী হাওয়াইয়ের গ্রামীণ অঞ্চল থেকে জিতে গত ছয় বছর আগে মার্কিন কংগ্রেসে যোগ দেন। বিগত কয়েক বছর ধরে হাওয়াইয়ের রাজনীতির অন্যতম চরিত্র ছিলেন তুলসী। মাত্র ২১ বছর বয়সে জিতে সব থেকে কম বয়সী রাজনীতিক হয়েছিলেন। ইরাকে জাতীয় সেনা রক্ষীর কাজে যোগ দিতে রাজনীতি ছাড়েন। তখন থেকেই রাজনীতির অলিন্দে তুলসী পরিচিত মুখ। ট্রাম্পকে প্রতারক বলে অভিযোগ করা তুলসী সিরিয়ার শরণার্থীদের আমেরিকায় প্রবেশ রুখতে ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তিকে সমর্থন করেছেন। একসময়ে সমকাম বৈধ করাকে তীব্র বিরোধিতা করলেও গত ডিসেম্বরে তুলসী বলেন ‘‌ভালোবাসার থেকে শক্তিশালী কিছু হয় না। নিঃস্বার্থভাবে ভালোবাসলে কঠিন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা সম্ভব হবে।’ ইরাকই তাঁর জীবন দর্শন সম্পূর্ণ বদলে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আমেরিকার এই হিন্দু ধর্মাবলম্বী সেনেটর। 
২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদি লোকসভা ভোট জিতে যখন প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন, সেসময় ভারত সফরে এসে মোদিকে নিজের ব্যক্তিগত সংগ্রহ থেকে ভগবত্‌ গীতা উপহার দিয়েছিলেন তুলসী। সামোয়া বাবা এবং ইওরোপীয় মায়ের মেয়ে তুলসী জন্মসূত্রে মার্কিনী। পাঁচ ভাইবোনের মধ্যে চতুর্থ তুলসীর মা জাতে ইওরোপীয় হলেও হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত ছিলেন। কিশোরী বয়সেই মায়ের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেছিলন এই তুখোড় রাজনীতিক।   ‌               

জনপ্রিয়

Back To Top