আজকাল ওয়েবডেস্ক: অভিবাসন নীতি নিয়ে তাঁর কড়া অবস্থানের সমালোচনা চলছে সারা বিশ্বে। সেটাকে কিছুটা হাল্কা করার চেষ্টায় আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দাবি করেছেন যে তিনি মেধা–ভিত্তিক অভিবাসন ব্যবস্থাপনার জন্য এক্সিকিউটিভ অর্ডার নিয়ে চিন্তাভাবনা করছেন। একটি নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প এই দাবি করে বলেছেন, তাঁর ওই নতুন ব্যবস্থা ডেফার্ড অ্যাকশন ফর চাইল্ডহুড অ্যারাইভালস্‌ বা ডিএসিএ প্রাপকদের আমেরিকার নাগরিকত্ব পাওয়ার পথ মসৃণ করবে। তিনি বলেছেন, ‘‌এই বিল খুব বড় হবে, খুব ভালো হবে। এতে মেধি–ভিত্তিক এবং ডিএসিএ থাকবে। এবং আমার মনে হয় মানুষ খুব খুশি হবে।’
ডিএসিএ হল সেই মার্কিন অভিবাসন নীতি, যাতে কোনও ব্যক্তিকে বাচ্চা বয়সে অবৈধভাবে আমেরিকায় আনলে তাঁকে দুবছরের সময় দেওয়া হয় তাঁকে তাঁর দেশে ফেরত পাঠানোর আগে। যাতে তিনি নিজেকে আমেরিকায় কাজ করার উপযুক্ত হিসেবে তৈরি করে নিতে পারেন। 
যদিও ট্রাম্পের এই দাবি সরকারের আরেকটা ভুল পদক্ষেপ বলেই মনে করছেন তাঁর দলেরই সেনেটর টেড ক্রুজ। এদিকে প্রেসিডেন্টের ওই সাক্ষাৎকারের পরই বিষয়টিকে লঘু করতে এবং মানুষকে জানাতে হোয়াইট হাউসের তরফে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্টের ঘোষণা মতো মেধাঁভিত্তিক অভিবাসন ব্যবস্থায় মার্কিন কর্মচারীদের ভবিষ্যতই সুরক্ষিত হবে। বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে যে ট্রাম্প কংগ্রেসের সহযোগিতা নিয়েই ডিএসিএ–র আইনি সমঝোতা চান। যাতে তার মধ্যে নাগরিকত্ব, স্থায়ী মেধা–ভিত্তিক সংস্কার এবং শক্তপোক্ত সীমান্ত সুরক্ষার বিষয়গুলি উল্লিখিত থাকে। ট্রাম্প অভিযোগ করেছেন, তিনি এই বিল দুবছর আগেই আনতে চেয়েছিলেন। কিন্তু বিরোধী ডেমোক্র‌্যাটদের বাধায় তা সম্ভব হয়নি। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top