আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ নিজেকে সবসময় একনম্বরে মেলে ধরার কাজে সমান দক্ষ তাঁরা দুজনেই। দুজনেই সর্বদা সদর্পে ঘোষণা করেন, তাঁদের সারাজীবনই দেশ এবং দেশবাসীর সেবায় নিয়োজিত। সেই নরেন্দ্র মোদি আর ডোনাল্ড ট্রাম্পের শীর্ষাসন ধরে রাখার লড়াই গড়াল সোশ্যাল মিডিয়াতেও।
শনিবার টুইটারে আগামী দুসপ্তাহ পর তাঁর সস্ত্রীক ভারতে আসার খবর জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  তার সঙ্গেই ফেসবুকের সহ প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকেরবার্গের মন্তব্য উল্লেখ করে তিনি ঘোষণা করেন, ফেসবুকে তাঁর স্থান শীর্ষে এবং মোদি রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে।

ট্রাম্পের টুইট, ‘‌সত্যিই এটা সম্মানের তাই না, মার্ক জুকেরবার্গ সম্প্রতি বলেছেন, ডোনাল্ড জে ট্রাম্প ফেসবুকে একনম্বরে আছেন আর ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি রয়েছেন দুনম্বরে।’‌
উল্লেখ্য, গত মাসেও দাভোসে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ফাঁকে ট্রাম্প একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় দাবি করেন, তিনিই ফেসবুকে একনম্বর স্থানে আছেন এবং ‘‌ভারতের মোদি রয়েছেন দুনম্বরে’‌। যদিও তথ্য বলছে ট্রাম্পের এই দাবি সম্পূর্ণ ভুল। কারণ ফেসবুকে ফলোয়ার  গুণলে দেখা যাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মে মোদির রয়েছে ৪৪ মিলিয়ন ফলোয়ার আর ট্রাম্পের ২৭.‌৫ মিলিয়ন ফলোয়ার।

মোদির পক্ষে ‘‌লাইক’ রয়েছে ৪৪.‌৫ মিলিয়ন এবং ট্রাম্পের পক্ষে ‘‌লাইক’‌ আছে ২৬ মিলিয়ন। যার অর্থ ফলোয়ার আর ‘‌‌লাইক’‌, দুটোতেই ট্রাম্পকে দ্বিগুণ টেক্কা দিয়েছেন মোদি।
তবে ট্রাম্প ফেসবুকে মোদির দ্বিতীয় স্থান নিয়ে খুব একটা ভুল বলেননি। কারণ, তথ্য অনুযায়ী, ফেসবুকে ৫৩.‌৫ মিলিয়ন ফলোয়ার এবং ৫৫ মিলিয়ন ‘‌লাইক’‌ নিয়ে ট্রাম্পের পূর্বসূরী বারাক ওবামাই ফেসবুকে এখনও শীর্ষ স্থানাধিকারী। মোদি দ্বিতীয় এবং ট্রাম্প তৃতীয় স্থানে আছেন।
ছবি:‌ এএনআই

জনপ্রিয়

Back To Top