‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ডোনাল্ডের নিরাপত্তা দলে জায়গা পেলেন এক ভারতীয় শিখ। প্রথম কোনও শিখ হিসাবে এই কৃতিত্ব অর্জন করলেন অংশদীপ সিং ভাটিয়া। অংশদীপের এই চাকরি পাওয়ার পিছনে রয়েছে অভিনব সংগ্রামের ইতিহাস। লুধিয়ানায় জন্ম হলেও বাবার ১৯৮৪–র শিখ সংঘর্ষের সময় আমেরিকায় চলে আসেন অংশদীপ। তাঁর বাবা মার্কিন মুলুকে ওষুধের ব্যবসা শুরু করেন। প্রাথমিকভাবে অংশদীপ মার্কিন সেনায় যোগ দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নানা কারণে সেটা হয়ে ওঠেনি। পরে মার্কিন প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তারক্ষী পদে তিনি পরীক্ষা দেন। উত্তীর্ণও হন সেই পরীক্ষায়। কিন্তু তাঁকে বলা হয়, প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তারক্ষী হতে গেলে পাগড়ি পরা চলবে না। এই নির্দেশের প্রতিবাদ জানান অংশদীপ। পাশাপাশি অভিযোগ জানান আদালতেও। অংশদীপের বক্তব্য ছিল, তাঁর ধর্মীয় সাজপোশাকের সঙ্গে কাজের কোনও সম্পর্ক নেই। যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও তাঁকে কেবলমাত্র পাগড়ি পরার কারণে তাঁকে প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তারক্ষীর কাজে যোগ দিতে দেওয়া হচ্ছে না। দীর্ঘ সওয়াল–জবাবের পরে অংশদীপের দাবি মেনে নেয় আদালত।
নিরাপত্তারক্ষীর পদে অংশদীপের কাজ করাটাকে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে মার্কিন মুলুকের শিখ সম্প্রদায়। তাদের বক্তব্য, পাগড়ি ও দাড়ির জন্য আমেরিকার আমজনতার একটা বড় অংশ তাদের ইসলামী সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে গুলিয়ে ফেলে। বিশেষত ওসামা বিন লাদেনের সাজপোশাকের সঙ্গে তাঁদের তুলনা করা হয়। অংশদীপ যদি প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করেন, তাহলে হয়তো ছবিটা পাল্টাবে।
 

জনপ্রিয়

Back To Top