আজকাল ওয়েবডেস্ক: সমুদ্রের ধারে হাঁটতে-হাঁটতে ১৫ পাউন্ড তিমি মাছের বমি পেয়ে ধনী হয়ে গেলেন এক মহিলা।  এক লহমায় বানিয়ে দিলো কোটিপতি। বছর পঞ্চাশের সিরিপর্ন নিয়ামরিন।  থাইল্যান্ডের বিচে হাঁটছিলেন। আচমকাই চোখে পড়ে সেই বমি খন্ড। তিনি আগ্রহের বশেই তুলে নেন সেই মাংশল পিন্ড। হয়তো ধারনাতেও ছিল না নিজের অজান্তেই তিনি পেয়ে গেছেন বহুমুল্য বস্তু। পরে জানতে পারেন সংগ্রহের এমন মূল্যবান জিনিস যা এক্সপার্টদের অনুমান  হিসেবে আনুমানিক ১ লক্ষ ৮৫ হাজার পাউন্ড স্টার্লিং দামি।  মানে ভারতীয় টাকায় ১ কোটি ৮৮ লাখ টাকার উপরে। 

সেদিন সমুদ্রে ঝড় উঠেছিল। ঝড় থেমে যাওয়ায় সমুদ্রসৈকতে হাঁটছিলেন সিরিপর্ন। তিনি আচমকাই একটি মাংসপিণ্ডের মতো বস্তু দেখতে পান। থাইল্যান্ডের নাখন সমুদ্রসৈকতে এই ঘটনাটি ঘটে ফেব্রুয়ারির ২৩ তারিখে। পিন্ডটি হাতে নিয়ে অনুভব করেন এর থেকে অদ্ভুত গন্ধ বেরিয়ে আসছিল। তাই দেখে সিরিপর্ন ভাবছিলেন যে হয়তো এটা কোন কাজে লাগতে পারে।  এ দিয়ে কিছু টাকা রোজগার করা যেতে পারে। তাই তিনি এটিকে ঘরে নিয়ে আসেন। জিনিসটি সম্পর্কে বিশদে জানতে তিনি এলাকারই একজনকে সেটি দেখান এবং তারপরেই তিনি হতবাক হয়ে পড়েন এটা জানতে পেরে যে তিনি বহুদূর মূল্য তিমির বমি খুঁজে পেয়েছেন। ১২ ইঞ্চি পাশ  এবং ২৪ ইঞ্চি লম্বা ১৫ পাউন্ডের এই সুগন্ধি পিন্ডটির দাম কোটি টাকার ওপর।
 সিরিপর্ন জানতে পারেন এই তিমির বমি বহু দামী দামী পারফিউম উৎপাদনে ব্যবহৃত হয়। খবর রটে যায় মুহুর্তেই। আর পার্ফিউম মেকাররা সওদা শুরু করে দিয়েছেন সিরিপর্নের সাথে। ফলে ভাগ্যের জোরে একদিনে কোটিপতি বনে থাইল্যান্ডের গেলেন সেই মহিলা।

জনপ্রিয়

Back To Top