আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করাচিতে পাকিস্তান স্টক এক্সচেঞ্জে জঙ্গি হামলা। গ্রেনেড আর বন্দুক নিয়ে চড়াও হয় চার জঙ্গি। পুলিশ জানিয়েছে, চার জনকেই খতম করা হয়েছে। ঘটনায় মারা গেছেন অন্তত ছ’‌ ‌জন নিরপরাধ। কোনও জঙ্গি গোষ্ঠী এখনও ঘটনার দায় স্বীকার করেনি। 
করাচির এই বিল্ডিংয়ে উচ্চ সতর্কতা জারি রয়েছে। স্টক এক্সচেঞ্জের পাশাপাশি বহু বেসরকারি ব্যাঙ্কেরও সদর দফতর এখানে। তার পরেই কীভাবে জঙ্গিরা হামলা চালাল, সেই নিয়ে ধন্দে পাক পুলিশ। করাচি পুলিশের প্রধান গুলাম নবি মেমন জানিয়েছেন, ‘‌চার জন বন্দুকবাজই খতম হয়েছে। তারা রুপোলি রংয়ের করোলা গাড়িতে চেপে এসেছিল।’‌ করাচি পুলিশের তরফে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, জঙ্গিদের গুলিতে চার জন নিরাপত্তারক্ষী, এক জন পুলিশ এবং এক জন উপস্থিত ব্যক্তি মারা গেছেন। 
করাচি পুলিশ আরও জানিয়েছে, জঙ্গিদের থেকে আধুনিক স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র, বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে। পাক স্টক এক্সচেঞ্জ টুইটারে লিখেছে, ‘‌এখনও পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। নিরাপত্তা বাহিনীর সহায়তায় কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।’‌ 
এই মাসের শুরুতে দক্ষিণ পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে একই দিনে তিনটি বিস্ফোরণ হয়। নেপথ্যে ছিল একটি বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী। এর আগে সেভাবে তাদের নাম শোনা যায়নি। ওই ঘটনায় দু’‌জন সেনা সহ চার জন নিহত হন। ওই সিন্ধ প্রদেশেরই রাজধানী করাচি। এবার সেখানেই জঙ্গি হামলা। সিন্ধ প্রদেশের গভর্নর ইমরান ইসমাইল ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন। 
এককালে অপরাধ, খুনোখুনির কেন্দ্র ছিল করাচি। রাজনৈতিক দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব লেগেই থাকত। এক দলের হাতে অন্য দলের লোকের খুন হওয়ার ঘটনা প্রায়ই চলত। গত কয়েক বছর ধরে নিরাপত্তারক্ষীদের অভিযানে জঙ্গি এবং রাজনীতিকদের পোষা গুণ্ডারা নিকেশ হয়েছে অনেকটাই।  

জনপ্রিয়

Back To Top