আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌ঈশ্বরের দোহাই, আমাদের সাহায্য করুন।’‌ এই কাতর আর্তি নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় সাহায্য চাইছে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ার শিশু–কিশোররা। সিরিয়ায় বিদ্রোহীদের শক্ত ঘাঁটি ঘওতা শহরে বোমা–গুলির তাণ্ডবে প্রাণ হারিয়েছেন ৬০০ মানুষ। যাদের মধ্যে কমপক্ষে ১৩০জন শিশু। পরিস্থিতি এতটাই বীভৎস যে, রাষ্ট্রপুঞ্জের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও ঠিতমতো ত্রাণ বিলি করা যাচ্ছে না। তাই এবার ত্রাণ পেতে সোশ্যাল মিডিয়াকেই হাতিয়ার করেছে সিরিয়ার শিশু–কিশোররা।
২০১৩ সাল থেকে ঘওতা–কে ঘিরে ধরে দফায় দফায় হামলা চালিয়েছে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বশির আসাদের বাহিনী। কিন্তু বিগত দু’‌সপ্তাহে পরিস্থিতি যা, সেটাকে নারকীয় বললেও কম বলা হবে। এই পরিস্থিতিতে ১৫ বছর বয়সী মহম্মদ নাজিম টুইটারে লিখেছে, ‘‌আমার স্কুলটা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন ও আসাদের বাহিনীর নিশানা হয়েছে। স্কুলটিকে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘওতা শহর যেন নরক হয়ে গিয়েছে। যে কেউ যে কোনও সময়ে মারা যেতে পারে। আমার বহু বন্ধু সপরিবারে মারা গিয়েছে।’‌ প্রায় একই রকম বক্তব্য নুর ও আলা নামে দুই বোনের। নুরের বয়স ১০ বছর। আলা ৮ বছর বয়সী। টুইটারে একটি ভিডিওতে তারা বলেছে, ‘‌যাঁরা এটা দেখছেন, তাঁদের বলতে চাই আমরা দারুণ বিপদের মধ্যে আছি। আমরা মরতে চাই না। দয়া করে আমাদের উদ্ধার করুন।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top