আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের বৈঠকে বসতে চলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন। বৈঠকটি প্রত্যাশিতই ছিল। কিন্তু যেভাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আগ বাড়িয়ে তারিখ জানিয়ে দিলেন তা নিয়েই তৈরি হয়েছে বিতর্ক। এই শীর্ষ বৈঠক ভিয়েতনামের হ্যানয়তে।
গত বছর সিঙ্গাপুরে বৈঠক করেছিলেন কিম–ট্রাম্প। সেই বৈঠক অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছিল বলে দাবি হোয়াইট হাউসের। নিজে টুইট করে এই কথা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এই কূটনৈতিক সম্পর্ককে আরও অগ্রসর করতে দ্বিতীয়বার বৈঠকে বসতে রাজি হয়েছেন দুই রাষ্ট্র নেতা। স্থান–তারিখ জানিয়েছেন ট্রাম্প। ২৭–২৮ ফেব্রুয়ারি হ্যানয়ে বৈঠকে বসবেন দুই নেতা। যদিও উত্তর কোরিয়ার পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কিছু সুনিশ্চিত করে বলা হয়নি। কারণ স্থান–তারিখ ট্রাম্পের ঠিক করা।
এই বৈঠকে ১৯৫০–৫৩ সালের কোরিয়ান যুদ্ধে ইতি টানার বিষয়টি আলোচনা হওয়ার সম্ভাবনা তুঙ্গে। হোয়াইট হাউসের মতে ট্রাম্প এই যুদ্ধের সমাপ্তি নিয়ে অত্যন্ত আগ্রহী। কারণ ১৯৫৩ সালে দুই কোরিয়ার মধ্যে যুদ্ধবিরতি ঘোষিত হলেও আজও উত্তর–দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক দ্বন্দ্ব বজায় রয়েছে। বিশেষ করে দক্ষিণ কোরিয়ায় ২৮ হাজার ৫০০ মার্কিন সেনা মোতায়েন থাকায় আরও জটিল হয়েছে এই বিষয়টি। গত বছরের বৈঠকে উত্তর–কোরিয়ায় পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের লক্ষ্যে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন কিম জং উন। যদিও, সেই কাজ খুব একটা হয়নি কারণ দুই পক্ষের ফের দ্বিমত দেখা গিয়েছিল। সেই দ্বিমত দ্বিতীয় বৈঠকে কাটে কিনা এখন সেটাই দেখার। 

জনপ্রিয়

Back To Top