আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সাম্প্রদায়িক হিংসার জের। মঙ্গলবার থেকে শ্রীলঙ্কায় ১০ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করল সরকার। মৈত্রিপলা সিরিসেনা সরকারের মুখপাত্র দয়াসিরি জয়শেখর এদিন বলেন, মন্ত্রিসভার বিশেষ বৈঠকে স্থির হয়েছে, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সাম্প্রদায়িক হিংসা রুখতেই ১০ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যারা হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপেরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মন্ত্রিসভায়, বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান জয়শেখর। সোমবার একটি মুসলিম ব্যবসায়ীর দোকানে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ক্যান্ডি এবং অন্য হিংসাবিধ্বস্ত জেলাগুলিতে সেনাবাহিনী এবং এলিট পুলিস পাঠিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। বন্ধ জেলার সব কটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এপর্যন্ত ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। তার মধ্যে ১০ জনের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু হয়েছে। সোমবার থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ক্যান্ডিতে কারফিউ জারি ছিল। সকালে তা ওঠার পর ফের গণ্ডগোল শুরু হতেই জরুরি অবস্থা জারির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত এক বছর ধরেই বৌদ্ধ–মুসলিম হিংসায় অগ্নিগর্ভ দ্বীপরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী জেলা ক্যান্ডি। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়ারও তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন শ্রীলঙ্কার বৌদ্ধরা। সাম্প্রতিক ঘটনার সূত্রপাত গত ২২ ফেব্রুয়ারি। দুটি গাড়ির সংঘর্ষের জেরে ৪১ বছরের এক বৌদ্ধ যুবককে বেধড়ক মারধর করে একদল ব্যক্তি। গত রবিবার তিনি মারা যান। তারপর থেকে টানা সোমবার পর্যন্ত ক্যান্ডির দিগানা অঞ্চলও বৌদ্ধ–মুসলিম হিংসায় অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।       ‌‌

 

ছবি: এএফপি

জনপ্রিয়

Back To Top