আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সন্ত্রাসবাদের ধর্ম হয় না। তবে ধর্মের নামেই নাশকতা ঘটাচ্ছে জেহাদিরা। আবার সেই ধর্মীয় পরিধানের আড়ালে গা ঢাকা দিচ্ছে জঙ্গিরা। তাই ইস্টার ডে হামলার পর এবার বোরখা নিষিদ্ধ করার কথা ভাবছে শ্রীলঙ্কা সরকার। সেখানকার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, বোরখা নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে ইতিমধ্যে ভাবনা চিন্তা শুরু করে দিয়েছে মৈত্রীপালা সিরিসেনার সরকার। ইতিমধ্যে এই নিয়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতাদের সঙ্গেও আলোচনা চালাচ্ছে তাঁরা। সেদেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রক সূত্রে খবর, বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপালা সিরিসেনার সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে। কিন্তু কী এমন হল, যাতে হঠাৎ করে বোরখা নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে ভাবনা চিন্তা শুরু করল সেদেশের সরকার? সূত্রের খবর, ইস্টার ডে হামলার পরের দিন অর্থাৎ সোমবার রাজধানী কলম্বো শহরের লাগোয়া দেমাতাগোডা এলাকায় সন্ত্রাসবাদীদের লুকিয়ে থাকার খবর পায় নিরাপত্তাবাহিনী। তড়িঘড়ি ঘিরে ফেলা হয় এলাকাটি। তবে চিরুণী তল্লাশি সত্ত্বেও বোরখার আড়ালে অনেক জঙ্গি পালিয়ে যায়। মুখ ঢাকা থাকায় তাঁদের চিনতে পারেনি নিরাপত্তারক্ষীরা। তাই ফের যাতে জঙ্গিরা এভাবে পালাতে না পারে তাই বোরখা নিষিদ্ধ করার কথা ভাবছে সরকার। ইতিমধ্যে শ্রীলঙ্কার সংসদে বোরখার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার দাবি জানিয়ে প্রস্তাব পেশ করেছেন শাসকদল ‘ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টি’র সাংসদ আশু মারাসিংঘে। তবে এখনই এ ব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।
এদিকে, রবিবারের ঘটনার প্রেক্ষিতে শ্রীলঙ্কার পুলিস প্রধান এবং প্রতিরক্ষাসচিবকে ইস্তফা দিতে বললেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপালা সিরিসেনা।

জনপ্রিয়

Back To Top