Ukraine Crisis: ‌ইউক্রেন সীমান্তে অসামরিক কনভয়ে হামলা রুশ–পন্থী বিদ্রোহীদের 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাশিয়া যে ইউক্রেন আক্রমণ করবে, তা একপ্রকার নিশ্চিত।

এমনটাই মনে করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তাঁর মতে, ‘‌রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন রাজধানী কিয়েভ–সহ ইউক্রেনে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করে ফেলেছেন। সীমান্তে সেনা সক্রিয়তার ফলে উত্তেজনা তৈরি হলেও মিথ্যে কথা বলে ধামাচাপা দিতে চাইছেন।’ বাইডেনের দাবি, আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট বলছে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ইউক্রেনে হামলা চালাবে রাশিয়ার সেনা। এরই মধ্যে ইউক্রেনের পূর্বপ্রান্তের শহর ডোনেটস্কে একটি অসামরিক কনভয়ের উপর হামলা চালিয়েছে রুশ–পন্থী বিদ্রোহীরা। রাশিয়ার মদতেই এই হানাদারি বলে দাবি আমেরিকা–সহ পশ্চিমী সংবাদমাধ্যমগুলির। সম্ভাব্য যুদ্ধ পরিস্থিতিতে সীমান্তবর্তী ওই এলাকা থেকে অসামরিক নাগরিকদের সরাতে গিয়ে আক্রান্ত হয় কনভয়।
মস্কোর তরফে কিন্তু মঙ্গলবার ইউক্রেনের সঙ্গে যুদ্ধের সম্ভাবনা খারিজ করা হয়েছিল। কিন্তু সেই দাবি মানতে রাজি হননি বাইডেন। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার প্রকাশিত একটি উপগ্রহচিত্রে দেখা যাচ্ছে, ইউক্রেন সীমান্ত থেকে সেনা সরানো দূরের কথা, এখনও ক্রমাগত বাহিনী মোতায়েন করে যাচ্ছে মস্কো। ইউক্রেন সীমান্তের ৫০ কিলোমিটারের মধ্যে অন্তত ১৪টি ঘাঁটি বানিয়েছে রুশ ফৌজ। দ্রুত সীমান্তে সেনা পাঠাতে রাতারাতি তৈরি করে ফেলা হয়েছে অস্থায়ী সেতু। বুধবার ক্রাইমিয়ার বন্দরে পৌঁছেছে তিনটি রুশ যুদ্ধজাহাজ। এই আবহে ইউক্রেন লাগোয়া এলাকায় আমেরিকার নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনীর তৎপরতা শুরু হয়েছে। শুক্রবার রাতে আমেরিকার প্রতিরক্ষা সচিব লয়েড অস্টিন ইউক্রেন পরিস্থিতি নিয়ে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শইঘুর সঙ্গে কথা বলেছেন। এরই মধ্যে রাশিয়া গোপনে পরমাণু অস্ত্র মহড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে পশ্চিমী সংবাদমাধ্যমগুলি দাবি করে বসে আছে।

আরও পড়ুন:‌ আফগানিস্তানে ব্যবহৃত মার্কিন অস্ত্রের খোঁজ মিলল কাশ্মীরে, চাঞ্চল্য  


 

আকর্ষণীয় খবর