Ukraine Crisis: ‌বিভ্রান্তিমূলক প্রচার, ইউক্রেনে আগ্রাসনের দাবি মানতে রাজি নয় রাশিয়া

‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ যুদ্ধ আসন্ন?‌ ‌রাশিয়া–ইউক্রেন সংঘাত ঘিরে তপ্ত আন্তর্জাতিক রাজনীতি।

আমেরিকার অভিযোগ, বেআইনিভাবে ইউক্রেনে প্রবেশ করতে চাইছে রাশিয়া। এই পরিস্থিতিতে পশ্চিমী দেশ ও সংবাদমাধ্যমগুলিকে তুলোধনা করল রাশিয়া। তাদের দাবি, মিথ্যে তথ্য পরিবেশন করা হচ্ছে। মস্কোর অভিযোগ নিজেদের উগ্র কার্যকলাপ থেকে নজর ঘোরাতেই পশ্চিমী দেশ ও সংবাদমাধ্যমের একাংশ বিশ্বব্যাপী রাশিয়ান আক্রমণের বিষয়ে একটি বড় আকারের বিভ্রান্তিমূলক প্রচার ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণ আসন্ন বলে একদিন আগেই হুঁশিয়ারি দিয়েছে আমেরিকা। ইউক্রেন থেকে মার্কিন নাগরিকদের সরে আসার বার্তা দেওয়া হয়েছে। এরপরই রাশিয়ার বিদেশ মন্ত্রকের তরফে বিবৃতি জারি করে যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘‌২০২১ সালের শেষের দিকে এবং ২০২২ সালের শুরুতে সংবাদমাধ্যমকে হাতিয়ার করে সারা বিশ্বে প্ররোচনা দিয়ে এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে। সারা পৃথিবীকে বোঝানোর চেষ্টা করা হচ্ছে যে রাশিয়ান ফেডারেশন ইউক্রেনের ভূখণ্ডে আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছে।’‌ 
রাশিয়ার আগ্রাসন থেকে বাঁচতে আমেরিকা ও তাদের মিত্র শক্তি ইতিমধ্যেই তাদের নাগরিকদের ইউক্রেন থেকে দেশে ফিরে আসার অনুরোধ জানিয়েছে। আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জেক সুলিভান জানিয়েছেন, আমেরিকানরা যদি ভেবে থাকেন ইউক্রেনে তারা আটকে পড়লে আমেরিকা সেনা পাঠিয়ে তাদের উদ্ধার করবে, তা সম্ভব নয়। তাই তাদের উচিত ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ইউক্রেন ছেড়ে দেওয়া। মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কিভের মার্কিন দূতাবাসের কর্মীরা যতদ্রুত সম্ভব যেন ইউক্রেন ছেড়ে বেরিয়ে আসে।  আমেরিকার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডও তাদের নাগরিকদের যত দ্রুত সম্ভব ইউক্রেন ছাড়তে বলেছে। ব্রিটেন, জাপান, নরওয়ে, লাটভিয়া, নেদারল্যান্ডস আগেই তাদের নাগরিকদের এই কথা জানিয়েছিল।

 

আরও পড়ুন:‌ প্রাক্তন সপা মন্ত্রীর ছেলের আশ্রমের পাশে উদ্ধার উন্নাওয়ের দলিত তরুণীর দেহ 

আকর্ষণীয় খবর