আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পাকিস্তানি ক্রিশ্চান এশিয়া বিবির সমর্থনে লাল হল রোমান কলোসিয়াম। শনিবারের বৃষ্টিভেজা রাতে প্রাচীন কালের ক্রিশ্চান শহিদদের প্রতীক রোমের অ্যাম্ফিথিয়েটার সেজে ওঠে লাল রঙের আলোয়। সেখানে পাকিস্তানের ধর্মান্ধতা আইনের বিরোধিতা করে আশিয়া নৌরিন ওরফে এশিয়া বিবির স্বামী আশিক মাসিহ্‌ বলেন, ক্রিশ্চানদের বিরুদ্ধে পাক মুসলিমদের হিংসার ফলেই তাঁর স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ডের আদেশ হয়েছে। মায়ের কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন এশিয়া বিবির মেয়ে। ইওরোপিয়ান পার্লামেন্টের সভাপতি আন্তোনিও তাজানি বলেন, ক্রিশ্চানদের বিরুদ্ধে এই গণহত্যার প্রক্রিয়া বদলাতে শক্ত হাতে হাল ধরতে হবে সারা ইওরোপকে। ইতালিয়ান বিশপ্‌স কনফারেন্সের জেনারেল সেক্রেটারি আর্চবিশপ নুনজিও গ্যালান্টিনো বলেন, যাঁরাই অন্যরকম বিশ্বাসে বিশ্বাসী তাঁরাই ধর্মান্ধতার শিকার হচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সাল থেকে ধর্মান্ধতা আইনে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত এশিয়া বিবি পাকিস্তানের জেলে বন্দি। ২০০৯ সালে পাক–পাঞ্জাবের শেখুপুরা জেলায় একই পাত্রের জলপান করায় একদল মুসলিম মহিলার সঙ্গে বচসা বাঁধে এশিয়া বিবি। অভিযোগ, সেই সময় ইসলাম ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা মহম্মদকে কটূক্তি করেন তিনি। এরপরই পাকিস্তান দণ্ডবিধির ২৯৫সি ধারায় তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিস। শেখুপুরা আদালতে তোলা হলে ধর্মান্ধতা আইনে তাঁকে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারক। এই রায়ের প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে ওঠে সারা বিশ্বের ক্রিশ্চান সমাজ। খুনের হুমকি দেওয়া হয় তাঁর পরিবারকেও। পরে পোপ ষোড়শ বেনেডিক্টের সহায়তায় তাঁর স্বামী এবং মেয়ে ইওরোপে পালিয়ে যান। এমনকি এশিয়া বিবির মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদ করায় পাকিস্তানের ক্রিশ্চান সংখ্যালঘুমন্ত্রী শাহবাজ ভাট্টি এবং মুসলিম নেতা সলমন তাসিরও খুন হন।  

জনপ্রিয়

Back To Top