আজকাল ওয়েবডেস্ক: ইরানের পক্ষ থেকে আগেই হুমকি দেওয়া হয়েছিল, সবে তো শুরু আরও অনেক কিছু দেখতে হবে ট্রাম্পের আমেরিকাকে। সেই হুমকি যে ফাঁকা আওয়াজ নয় তা বোঝা গেল‌ ইরাকের মার্কিন সেনাঘাঁটি ফের হামলা করার মধ্য দিয়ে। বাগদাদের উত্তরে আল–বালাদ বায়ুসেনা ঘাঁটিতে পরপর চারটি রকেট হামলার ঘটনা ঘটেছে। এই হামলায় ইরাকি বায়ুসেনার চারজন কর্মী জখম হয়েছেন বলে সংবাদসংস্থা এএফপি জানিয়েছে।
ইরাকের রাজধানী বাগদাদ থেকে ৫০ কিলোমিটার উত্তরে আল–বালাদ বায়ুসেনা ঘাঁটি অবস্থিত। সেখানে মার্কিন সেনার একটি বেস আছে। এই সেনাঘাঁটির অভ্যন্তরের রানওয়েতে পরপর চারটি রকেট এসে পড়ে। ইরানের সঙ্গে সাম্প্রতিক তিক্ততার জেরে এই ঘাঁটি থেকে অধিকাংশ মার্কিন সেনাকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল। ইরাকের বিভিন্ন ঘাঁটিতে বর্তমানে প্রায় ৫০০ মার্কিন জওয়ান মোতায়েন আছেন।
উল্লেখ্য, মার্কিন ড্রোন হানায় ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান কাসেম সুলেমানির মৃত্যুর পরে তলানিতে এসেছে ইরান–মার্কিন সম্পর্ক। বদলা নিতে ইরান শুরু হয়েছে প্রত্যাঘাত। সম্প্রতি ইরাকে দু'টি মার্কিন সেনাঘাঁটিতে এক ডজন মিসাইল হামলা চালায় তেহরান। ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতোল্লা আলি খামেনেই হুমকির সুরে বলেছিলেন, বদলা এখনও বাকি।ইরাকের আরও একটি মার্কিন সেনাঘাঁটিতে হামলার ঘটনা বদলা হিসাবেই দেখছে বিশেষজ্ঞরা।

জনপ্রিয়

Back To Top