আজকাল ওয়েবডেস্ক: ৩৫ ডলারে কেনা পোর্সেলিনের বাটি আচমকাই হয়ে উঠল দুর্মূল্য।  ৩ থেকে বেড়ে ৫ লক্ষ ডলার মূল্য হল সেই 'সাধারণ' বাটিটির। কিন্তু এটা কিভাবে সম্ভব! মাত্র ১৬ সেন্টিমিটার ব্যাসের ছোট্ট বাটিটিতে সাদা রঙের  মধ্যে কোবাল্ট ব্লু দিয়ে শুধুমাত্র কিছু ফুল এবং নকশা ডিজাইন করা। আর সেই বাটিটি নিলামে দাম ধরা হয়েছে তিন লক্ষ ডলার!  বাটিটি আসলে একটি অ্যান্টিক পিস, এমনটাই মনে করছে সাউথ বে।  এক্সপার্টদের ধারণা এই ধরনের বাটি গোটা পৃথিবীতে আছে মাত্র সাতখানা। বাটিটা চাইনিজ আর্টের এক বিরলতম নিদর্শন যা কিনা আগামী ১৭ মার্চ নিলামে উঠবে। 
চাইনিজ সেরামিক আর্ট এক্সপার্টদের মতে, বহুমূল্য এই বাটি যার কাছেই ছিল সে না বুঝে নামমাত্র মূল্যে বিক্রি করে দিয়েছে। তারা এটাও নিশ্চিত করেছেন, ১৫০০ শতাব্দীর শুরুর দিকে তৈরি এই বাটি একেবারেই সাধারণ দেখতে। 
বাটিটি চট করে দেখলে বোঝাই যায় না এটি এত বহুমুল্য। তবে এক্সপার্টরা হাত দিলেই বুঝতে পারেন তার নির্মাণশৈলী, নমনীয়তা, রঙের ব্যবহার, চমক এবং তার কারুকার্য সবকিছুই অনন্য। বাটিটি chicken এর heart শেপে বানানো হয়েছে। এই ধরনের বানানো আর বাকি যে ৬ খানা বাটি রয়েছে সবকটি সযত্নে রাখা রয়েছে মিউজিয়ামে। একটি মাত্র অবশিষ্ট ছিল যা কিনা এখন নিলামে উঠতে চলেছে।
 দুটো বাটি আছে ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব তাইপেই, তাইওয়ানে। দুটো আছে লন্ডনে আর দুটো ইরানে। তবে কিভাবে এই ধরনের বাটি খুচরা বাজারে বিক্রি হয়ে গেল সেটা এখনও রহস্যের। মনে করা হচ্ছে কোনও পরিবারের কাছে বংশ পরম্পরায় রক্ষিত ছিল বাটিটি। কোন কারণে সেটিকে বিক্রি করে দেওয়ায় বাজারে চলে এসেছে তা। তবে ৩৫  ডলারের ক্ষুদ্র বাটি এখন আমেরিকানদের  আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে দাঁড়িয়েছে। নিলামের সোনার পাথরবাটি কি কোন মিউজিয়ামে জায়গা পাবে নাকি কোন ব্যাক্তির দুর্মূল্য সংগ্রহের শোভা বাড়াবে সেটাই দেখার।

জনপ্রিয়

Back To Top