আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফিলিপিন্সে জেগে উঠল তাল আগ্নেয়গিরি। সোমবার সকালে বিস্ফোরণের সঙ্গে সঙ্গে লাভার সরু ধারা বেরতে দেখা যায় আগ্নেয়গিরির মূল গহ্বর থেকে। তার সঙ্গে নির্গত হচ্ছে ছাই এবং ঘন ধূসর ধোঁয়া। ভূতত্ত্ববিদদের মতে, এর অর্থ লাভাস্রোত গহ্বরের মুখে পৌঁছে গিয়েছে। ফিলিপাইন ইনস্টটিটউট অফ ভলক্যানোলজি অ্যান্ড সিসমোলজি বা পিএইচআইভিওএলসিএস–এর ডিরেক্টর নেরাটো সোলিডাম বলেছেন, এখনও পর্যন্ত ততটা বিধ্বংসী অগ্ন্যুৎপাতের আশঙ্কা তৈরি হয়নি। তাই আগেই প্রশাসনকে তাল আগ্নেয়গিরি সংলগ্ন অঞ্চলের মানুষ এবং পশুপাখিদর সরানোর পরামর্শ দিয়েছেন সোলিডাম। ইতিমধ্যেই ৮০০০ স্থানীয় বাসিন্দাকে নিরাপদ সথানে সরানো হয়েছে। কোনওরকম দুর্ঘটনা এড়াতে সোমবারই ম্যানিলা থেকে যাতায়াতকারী ২৮৬টি বিমান বাতিল করা হয়েছে। তার ফলে আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র ফিলিপিন্সে নববর্ষের এই সময়ে প্রচুর পর্যটকদের ভিড় হয়। ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তে ম্যানিলার সব স্কুল এবং সব সরকারি অফিস বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিস, দমকল, চিকিৎসক এবং বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের সব ছুটি বাতিল করা হয়েছে। স্বাস্থ্যকর্মীরা মানুষদের ধোঁয়া এড়াতে মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছেন।
তাল ফিলিপিন্সের দ্বিতীয় জাগ্রত আগ্নেয়গিরি। শেষবার এই আগ্নেয়গিরি জেগেছিল ১৯৭৭ সালে। তবে ১৯১১ সালের উদ্‌গিরণ ছিল এপর্যন্ত সব থেকে ভয়ানক। অগ্ন্যুৎপাতে সেসময় মৃত্যু হয়েছিল ১৩৩৫ জনের।
ছবি:‌ এএনআই 

জনপ্রিয়

Back To Top