আজকাল ওয়েবডেস্ক: সাধারণ নির্বাচনের আগেই আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল পাকিস্তান। আগামী ২৫ জুলাই পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন হবে। ঠিক তার ১৪ দিন আগেই পাকিস্তানের পেশোয়ারে এক নির্বাচনী জনসভায় আত্মঘাতী হামলা হল। যার ফলে এক রাজনৈতিক নেতা সহ–১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর। এই ঘটনায় নিহতদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টি(এএনএম) প্রার্থী হারুন বিলোর। বিস্ফোরণে কমপক্ষে ৫০ জন জখম হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।তালিবান জঙ্গি সংগঠনের পক্ষ থেকে এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করা হয়েছে বলে খবর।
পুলিস সূত্রে খবর, নির্বাচনী জনসভায় তখন প্রার্থীকে স্বাগত জানাতে দলের সমর্থক ও অনুরাগীরা বাজি পুড়িয়ে স্বাগত জানাচ্ছিলেন। সেই সময়ই ভিড়ে মিশে গিয়ে মঞ্চের দিকে এগিয়ে আসে আত্মঘাতী হামলাকারী। বিলোর সভাস্থলে পৌঁছনোর পরই সমর্থকদের উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার জন্য মঞ্চের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন বিলোর। তখনই মঞ্চের কাছে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে।
আগামী ২৫ জুলাইয়ের ভোটে পেশোয়ারের পিকে–৭৮ আসনের প্রার্থী ছিলেন এএনপি’‌র নেতা নিহত বিলোর। পেশোয়ারের পুলিস আধিকারিক কাজি জামিল জানান, আট কেজি টিএনটি বিস্ফোরক ব্যবহার করে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড জানিয়েছে, এটি একটি আত্মঘাতী বিস্ফোরণ। এই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন পাকিস্তানের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি সর্দার মহম্মদ রাজা খান। একইসঙ্গে ঘটনাকে নিরাপত্তা বিভাগের দুর্বলতা বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। কমিশনার বলেছেন, স্বচ্ছ নির্বাচন প্রক্রিয়া বানচালের লক্ষ্যে এই বিস্ফোরণ একটা ষড়যন্ত্র।
অন্যদিকে এএনপি নেতা মিলন ইফতিকর হুসেন অভিযোগ করেন, দলের প্রার্থীদের নিরাপত্তা দিতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ সরকার। তবে এই বিস্ফোরণের পিছনে রাজনৈতিক চক্রান্ত আছে কিনা তা নিয়ে সন্দিহান সবপক্ষই। এই ঘটনায় সেনা নামানো হয়েছে গোটা এলাকায়। ঘটনার তদন্তও করা হচ্ছে। তবে পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচন যে রক্তাক্ত হতে পারে এই ঘটনা থেকে তা মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। 

জনপ্রিয়

Back To Top