আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চাল, ডাল, সহ অন্যান্য খাদ্যবস্তুর সঙ্গে ভেজাল মিশিয়ে বিক্রি নতুন কিছু নয়। গতবছর ‘প্লাস্টিকের চাল’ নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। কিন্তু এবার প্রকাশ্যে এসেছে অবাক করা জালিয়াতি। অভিযোগ, ব্যবহার করা কন্ডোম ধুয়ে, শুকিয়ে ফের প্যাকেটে ভরে বাজারে তা বিক্রি করা হচ্ছে!‌ 
ব্যবহৃত কন্ডোম ধুয়ে ফের বাজারে বিক্রি করার অভিযোগ পেয়ে মঙ্গলবার ভিয়েতনাম পুলিশ একটি অভিযান চালায়। আর তাতেই চোখ কপালে ওঠে পুলিশের। ভিয়েতনামের সরকারি সংবাদমাধ্যম ভিটিভি জানিয়েছে, একটি গুদামঘর থেকে প্রচুর পরিমাণে ব্যবহৃত কন্ডোম পাওয়া গিয়েছে। ভিয়েতনামের দক্ষিণ বিন দুয়ং প্রদেশের ওই গুদামঘরে বড় বড় ব্যাগে ভরা ছিল ওই সব কন্ডোম। কয়েক ডজন বড় ব্যাগ বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। বিন দুয়ং পুলিশ জানিয়েছে, বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে মোট ৩৬০ কেজি কন্ডোম। রয়েছে মোট ৩ লক্ষ ৪৫ হাজার কন্ডোম। এই ঘটনায় এক মহিলাকেও আটক করেছে পুলিশ। জেরায় তিনিই জানিয়েছেন এই আজব জালিয়াতির কথা। ওই মহিলা জানান, প্রথমে গরম জলে ধুয়ে নেওয়া হয় ব্যবহার করা কন্ডোম। এরপর তা শুকিয়ে বিক্রয়যোগ্য করে তোলা হয়। এর জন্য তিনি প্রতি কেজিতে ০.১৭ মার্কিন ডলার পান। 
গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই বাজারে বহু ব্যবহৃত কন্ডোম বিক্রি করে ফেলেছে এই জালিয়াত চক্র। তবে সেই পরিমাণ কত, তা এখনও জানা যায়নি। শুধু দেশীয় বাজারে বিক্রি নয়, এই ব্যবহৃত কন্ডোম বিশ্বের অন্য দেশেও রপ্তানি করা হয়েছে কি না, তাও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীর। উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের দাপটে বিশ্বে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের পাশাপাশি ওষুধের দোকানে কন্ডোমেরও অভাব দেখা দিয়েছিল। এখন অনেকটাই সামলে ওঠা গেলেও, অতিরিক্ত মুনাফার লোভে ব্যবহৃত কন্ডোম ধুয়ে ফের বাজারে বিক্রি করার কাজ শুরু করে থাকতে পারে ওই চক্র বলেও আশঙ্কা করছেন তদন্তকারীরা।

জনপ্রিয়

Back To Top