আজকাল ওয়েবডেস্ক: সংস্থার শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে সরিয়ে দেওয়া হল‌ স্বয়ং চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসারকে। অভিযোগ এক কর্মীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ায় সরিয়ে দেওয়া হল ম্যাকডোনাল্ডসের চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার স্টিভ ইস্টারব্রুককে। 
কী সেই শৃঙ্খলাভঙ্গ?‌ এই সংস্থার বোর্ডের দাবি, ২০১৫ সাল থেকে কোম্পানির পরিচালনার দায়িত্বে থাকা স্টিভ কর্মীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে খারাপ বিচারবোধের পরিচয় দিয়েছেন। রবিবারই কর্মীদের উদ্দেশ্যে ই–মেল করে স্টিভ লিখেছেন, ‘‌এটা একটা ভুল। কোম্পানির মূল্যবোধের দিকে তাকিয়ে আমি বোর্ডের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছি, এবার আমায় সরে দাঁড়াতে হবে।’‌
ম্যাকডোনাল্ডস, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ৫১ বছরের ক্রিস কেম্পজিনস্কিকে কোম্পানির নতুন চিফ এক্সিকিউটিভ করা হয়েছে। তিনি ম্যাকডোনাল্ডসের বোর্ডেও যোগ দিয়েছেন। তার জন্য স্টিভকে ধন্যবাদ জানিয়ে ক্রিস বলেছেন, কোম্পানি তার গ্রাহকদের উপর জোর দিয়ে পরবর্তী ভাবনায় মনোনিবেশ করবে।
সংস্থা সূত্রে খবর, #মিটু সোশ্যাল মিডিয়ায় আন্দোলনের মধ্যেই কর্মীদের প্রতি এক্সিকিউটিভদের আচরণের উপর একটি সমীক্ষা চালানো হয়। সেখানেই কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্থার অনেক ঘটনা উঠে আসে। ২০১৮ সালের জুন মাসে কোম্পানির নীতি ভাঙায় পদত্যাগ করতে হয় ইনটেল কর্পের সিইও ব্রায়ান জারনিচকে। তদন্তে দেখা গিয়েছিল, কোম্পানির এক কর্মীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি।
 
 

জনপ্রিয়

Back To Top