আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অশান্ত মালদ্বীপে রাজনৈতিক জট কাটাতে ভারতের হস্তক্ষেপ চাইলেন জেলবন্দি বিরোধী নেতা তথা প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মহম্মদ নাশিদ। মঙ্গলবার টুইটে মালদ্বীপবাসীর হয়ে তিনি আবেদন করেন, অবিলম্বে যেন সেখানে রাজনৈতিক সঙ্কট কাটাতে প্রতিনিধি পাঠায় ভারত সরকার। বিচারপতি এবং রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্ত করতে ভারতকে সেনাবাহিনী পাঠাতেও অনুরোধ করেছেন নাশিদ। সেই সঙ্গে আমেরিকাকে তাঁর আবেদন, মালদ্বীপে অর্থনৈতিক সাহায্য দেওয়া যেন অবিলম্বে বন্ধ করে দেয় তারা। বিরোধী দলনতা ফৈয়জ ইসমাইল বলেন, দেশের রাজনৈতিক সঙ্কট কাটানোর আর কোনও শান্তিপূর্ণ উপায় তাঁরা দেখতে পাচ্ছেন না। ভারতের হস্তক্ষেপ অত্যন্ত জরুরি। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সহ অন্য বিচারপতি এবং বিচারকদের গ্রেপ্তারির পর প্রেসিডেন্ট আবদুল্লা ইয়ামিন সোমবার থেকেই মালদ্বীপে ১৫ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করেছেন। ইসমাইলের কথায়, মালদ্বীপে জরুরি অবস্থা জারি করার মতো কোনও পরিস্থিতি এখনও আসেনি বলেই তাঁর মনে হয়। অন্যদিকে, প্রেসিডেন্ট ইয়ামিন বলেন, জরুরি অবস্থা জারি না করলে সুপ্রিম কোর্ট তাঁকেই সরিয়ে দিল সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে। বিচারপতিদের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্যই জরুরি অবস্থা জারি করার প্রয়োজন ছিল। ভারত মহাসাগরের এই দ্বীপরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ডামাডোলের উপর নজর রেখেছে দিল্লি। বিদেশ মন্ত্রকের তরফে বিবৃতি দিয়ে, গণতন্ত্রের শক্তি এবং আইনের শাসন ফেরানোর আবেদন করা হয়েছে। মালদ্বীপ সরকারকে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট নাশিদ সহ রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি দেওয়ার সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মানতেও আবেদন করেছে ভারত। একইসঙ্গে কোনও ভারতীয় নাগরিককে এই মুহূর্তে মালদ্বীপে যেতে নিষেধ করেছে বিদেশ মন্ত্রক।      
 

জনপ্রিয়

Back To Top