‌আজকাল ওয়েবডেস্ক: ক্রমশ বড় হচ্ছে মালদ্বীপে রাজনৈতিক সংকট। সংকট অনুমান করে আগেই সেদেশের সরকার ১৫ দিনের জন্য সংসদ স্থগিত করে দিয়েছিল। তারপরেই সোমবার মাঝরাতে গ্রেপ্তার করা হয় প্রধান বিচারপতিকে। আরও কিছু নেতা ও উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মচারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও খবর মিলেছে। সোমবার রাত থেকেই মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট ঘিরে রেখেছে পুলিস। অন্য যে বিচারপতিরা ছিলেন, তাঁদেরও ওখানেই আটকে রাখা হয়েছে। 
কিন্তু কেন এই রাজনৈতিক অস্থিরতা? সম্প্রতি মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি দেওয়ার আদেশ দিয়েছিল। কিন্তু সেই নির্দেশ মানতে অস্বীকার করে সরকার। উল্টে বিচারপতিদের গ্রেপ্তার করা হয়। ফলে দেশজুড়ে উঠেছে তুমুল সমালোচনার ঝড়। সব মিলিয়ে কিছুটা হলেও চাপে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লা ইয়ামিন। প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মহম্মদ নাসিদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে চালনো সরকারপক্ষের রুজু করা একটি মামলাকেও খারিজ করা হয়েছে। আরো একটি মামলাকেও অসাংবিধানিক বলে ঘোষণা করেছিলো সুপ্রিম কোর্ট। গোটা পরিস্থিতির দিকে চোখ রাখছে আমেরিকা। মার্কিন বিদেশ মন্ত্রকের সচিব বরিস জনসন টুইট করে বলেছেন, ‘‌শুধু আমরাই নয়, মালদ্বীপের দিকে সারা পৃথিবীর নজর রয়েছে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top