আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের বিদেশিদের চোখে সিএএ–এনআরসি নিয়ে সমালোচিত নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপি। জনপ্রিয় ব্রিটিশ কমেডিয়ান জন অলিভার সাম্প্রতিক ঘটনাবলী নিয়ে তাঁর সাপ্তাহিক ব্যঙ্গাত্মক শো ‘‌লাস্ট উইক টুনাইট’‌–এর নতুন এপিসোডে ভারতের সিএএ–এনআরসি সম্পর্কে ১৮ মিনিট আলোচনা করেন। এই আইনকে মুসলিম–বিরোধী হিসেবে অভিহিত করে মোদি এবং বিজেপি সম্পর্কে জনের ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য, ‘‌মোদি এবং তাঁর দল কয়েক কোটি মুসলিমকে নাগরিকত্ব থেকে ছেঁটে ফেলতে চাইছেন। আর ওঁরা এটা খুব বুদ্ধি করে দুটি পদক্ষেপে করেছেন।’
শো–এর ১৮ মিনিটের ক্লিপে সিএএ এবং এনআরসি ইস্যুকে বিশদে ব্যাখ্যাও করেছেন জন। তিনি বলেন, সংসদে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ঘোষিত এনআরসি–তে যেমন প্রত্যেক ভারতীয়কে নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে নথিপত্র দিতে হবে, যা বহু গরিব এবং নিরক্ষর মানুষের কাছে নেই। তেমনই সিএএ সেই সব শরণার্থীকেই নাগরিকত্ব দেবে যাঁরা মুসলিম নন। কীভাবে এই আইনের জন্য গত দুমাস ধরে প্রতিবাদ–আন্দোলনে অগ্নিগর্ভ হয়ে আছে ভারত, সেকথাও উল্লেখ করেছেন এই জনপ্রিয় কমেডিয়ান। বরাবরই ট্রাম্পের কড়া সমালোচক বলে পরিচিত জন এর আগেও বিভিন্ন সময়ে মোদির কিছু কাজকর্ম নিয়ে ব্যঙ্গ করেছিলেন। ওই এপিসোডে তাজমহল এবং মোদির ছবি দেখিয়ে তিনি বলেন, ‘‌ভালোবাসার প্রতীক যেখানে অবস্থিত নিঃসন্দেহে সেটা এই অস্থায়ী হিংসার প্রতীকের থেকে কিছু বেশিই আশা করে।’‌
‘‌লাস্ট উইক টুনাইট’‌–এর সর্বশেষ ওই এপিসোডটি সম্প্রচারিত হওয়ার পর সোমবার থেকেই তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড করতে থাকে। পক্ষে–বিপক্ষে মত দেয় নেটিজেনরা। স্বরা ভাস্কর, অনুরাগ কাশ্যপের মতো সিএএ–সমালোচকরা যেমন জন অলিভারকে এভাবে অভিনন্দন জানান। তেমনই কয়েকজন তাঁর নিন্দা করে বলেন, এধরনের সমালোচনার জন্যই বেশি ভোটে জিতে ফেরেন মোদি, ট্রাম্পের মতো নেতারা। 

জনপ্রিয়

Back To Top