আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পদত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী গিওসেপ্পে কন্তে। সোমবারই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, মঙ্গলবার পদত্যাগ করবেন তিনি। সেনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোর কারণেই সরে দাঁড়াতে হল তাঁকে। করোনা মহামারীর সঙ্গে যোগ হয়েছে দেশজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দা। এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগে ঘোর রাজনৈতিক অনিশ্চয়তায় মধ্যে পড়তে হল ইতালিকে। কয়েক সপ্তাহ ধরেই রাজনৈতিক অস্থিরতা ছিল। তা আরও গভীর হল মঙ্গলবার।  
গত সপ্তাহে হওয়া আস্থা ভোটে জিতলেও সেনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছেন কন্তে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মাত্তেও রেনজির দল জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ফলেই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়। মঙ্গলবারই প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাতারেল্লার কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। প্রেসিডেন্টের দপ্তরের তরফে পেশ করা এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে। তবে পদত্যাগ করলেও ফের মসনদে ফিরতে পারেন কন্তে। সেনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোর পর তাঁকে আরও শক্তিশালী সরকার গড়ার সুযোগ দিতে পারেন প্রেসিডেন্ট। কন্তের ঘনিষ্ঠরা মনে করছেন, আরও বড় কোনও জোট গঠন করতে পারেন তিনি। যদি শেষ পর্যন্ত তা না হয়, তাহলে অন্য কাউকে সেই সুযোগ দিতে পারেন প্রেসিডেন্ট। তাও না হলে, নির্বাচনের পথেই হাঁটা ছাড়া উপায় থাকবে না। তবে অনেকেই মনে করছেন, বুধবারই কন্তের ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হয়ে যেতে পারে। সেনেটে আরও একটি ভোট হারালে তিনি হয়তো আরও একটি সরকার গঠনের দাবি জানানোর ক্ষমতাও হারাবেন।  
এটা ঘটনা, করোনা পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ হওয়ার পাশাপাশি অর্থনৈতিক মন্দার ধাক্কাতেই সেনেটে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন কন্তে। এখনও করোনার ধাক্কায় দৈনিক মৃত্যু চারশোর বেশি ইতালিতে। আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ লাখ ছুঁই ছুঁই। মৃতের সংখ্যা পেরিয়েছে ৮৫ হাজার। এই পরিস্থিতিতে গত দু’সপ্তাহ ধরে ক্ষমতা দখলে রাখতে মরিয়া ছিলেন কন্তে। অবশেষে সরতে হল তাঁকে।

জনপ্রিয়

Back To Top