আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ পাকিস্তান অধীকৃত কাশ্মীরে রাওয়ালকোটে একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি স্থাপন করছে জঙ্গি সংগঠনগুলি। ঘাঁটি গড়ে তোলার প্রধান কাজটি করছে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জামাত–ই–ইসলাম। ঘাঁটি নির্মানের জন্য পাকিস্তান সেনা পুরোপুরি মদত দিচ্ছে জঙ্গিদের।  খাইবার পাখতুনের ওয়াজিরাস্তানে ১০০০০ জঙ্গিকে প্রশিক্ষণ দিয়ে ভারতে পাঠাবারও ছক কষছে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংগঠন আইএসআই। এমনই অভিযোগ ভারতের সুরক্ষা সংস্থাগুলির। এর আগে বালাকোটে বেশ কয়েকটি স্থায়ী জঙ্গিঘাঁটি ধ্বংস করেছিল ভারতীয় সেনা। তাই এবার বদলাচ্ছে জঙ্গিদের ছক। এবারের ঘাঁটিগুলি নাকি অস্থায়ী। সেগুলি বিপদ বুঝলে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে অন্যত্র। মানে কিছুটা তাঁবু ফেলে ঘাঁটি গাড়ার মতো করে এবারের ছক সাজিয়েছে পাক জঙ্গিরা।    
জম্মু–কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকেই ভারতের বিরুদ্ধে বারেবারে যুদ্ধের জিগির তুলছে পাকিস্তান। তার প্রমাণও মিলেছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এবং পাকিস্তানের রেলমন্ত্রীর বক্তব্যে। এবার বৃহস্পতিবার জম্মু–কাশ্মীরের বাগ ও কোটলি সীমান্ত এলাকায় প্রায় ২০০০ সেনা মোতায়েন করল ইসলামাবাদ। যদি ভারতীয় নিরাপত্তারক্ষা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সীমান্তে ভারতীয় সৈন্যের ঘাঁটি থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থান করছে পাকিস্তান সৈন্য। তাঁদের ওপর কড়া নজর রাখছে ভারতীয় সৈন্য। তবে ভারতীয় সৈন্য জানাচ্ছে, সীমান্তে সেনা মোতায়েন করে পাকিস্তান ভারতীয় সৈন্যকে ব্যস্ত রাখার চেষ্টা করছে যাতে জইশ–ই–মহম্মদ ও লস্কর–ই–তৈবার জঙ্গীরা নিরাপত্তাবাহিনীর নজর এড়িয়ে ভারতে প্রবেশ করতে পারে। 
কিছুদিন আগেই জম্মু–কাশ্মীরের একটি জঙ্গি ঘাঁটি থেকে দুই জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছিল ভারতীয় সেনা। তাদের বক্তব্যেই ফাঁস হয়েছিল পাকিস্তান সরকার, আইএসআই, পাকিস্তান সেনা ও জঙ্গি সংগঠনগুলির পরবর্তী পদক্ষেপ    ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top