সবরকমভাবে পাশে থাকার আশ্বাস, রাষ্ট্রপুঞ্জে মায়ানমারের আটক নেতাদের মুক্তির দাবিতে সোচ্চার ভারত 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মায়ানমার প্রসঙ্গে সোচ্চার ভারত। সে দেশের সামরিক জুন্টার নিন্দায় প্রস্তাব পাশ হয়ে গেল রাষ্ট্রপুঞ্জে। আর তারপরই নেত্রী আং সান সু কি–সহ আটক নেতাদের মুক্তির দাবিতে আন্তর্জাতিক মঞ্চে সোচ্চার হল ভারত। 
শুক্রবার দেশের সেনা শাসকদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার আর্জি জানান রাষ্ট্রপুঞ্জে সু কি সরকারের নিযুক্ত মায়ানমারের দূত কিয়াও ময়ে তুন। সবচেয়ে বড় কথা তুনের বিরুদ্ধে ‘রাষ্ট্রদ্রোহের’ অভিযোগ এনেছে জুন্টা। কিন্তু তাঁকেই মায়ানমারের স্বীকৃতি হিসেবে গণ্য করে রাষ্ট্রপুঞ্জ। এদিন রাষ্ট্রদূত তুনের আর্জির পরই জুন্টার নিন্দায় প্রস্তাব আনা হয় রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ সভায়। ভোটাভুটিতে প্রস্তাবের পক্ষে ভোট পড়ে ১১৯ টি। বিপক্ষে মাত্র ৩৬ ভোট।  প্রস্তাবে বলা হয়েছে, জুন্টার উচিত গণতান্ত্রিক সরকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে আটক নেতাদের মুক্তি দেওয়া। দেশটির সেনাশাসকদের কাছে অস্ত্র বিক্রি না করার আর্জিও জানায় রাষ্ট্রপুঞ্জ। গোটা বিষয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টি এস তিরুমূর্তি বলেন, ‘‌মায়ানমার নিয়ে আমাদের অবস্থান স্পষ্ট। সে দেশে বন্দি গণতান্ত্রিক সরকারের প্রতিনিধিদের মুক্তির দাবি জানানো হচ্ছে। হিংসা কখনই সমর্থনযোগ্য নয়। মায়ানমারের গণতন্ত্র ফেরাতে সবরকমভাবে চেষ্টা করে যাবে ভারত।’‌ গত ফেব্রুয়ারি মাসে সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকেই মায়ানমারের পরিস্থিতি জটিল হয়েছে। গণতন্ত্রকামীদের প্রবল বিক্ষোভের পর বার্মিজ সেনার বিরুদ্ধে মোর্চা খুলেছে বেশ কয়েকটি বিচ্ছিন্নতাবাদী সশস্ত্র সংগঠন। সামরিক জুন্টার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের ডাক দিয়েছে একাধিক বিদ্রোহী সংগঠন। এবার রাষ্ট্রপুঞ্জেও চাপের মুখে মায়ানমারের সেনাশাসকরা।