আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা করা হোক। পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর ফ্রান্স রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদে এই প্রস্তাব এনেছিল। এরপর আমেরিকা, ব্রিটেন এবং পরবর্তীতে রাশিয়া তাতে সম্মতিও জানিয়েছিল। কিন্তু ভারতের ভয় ছিল চীনকে নিয়েই। কারণ এর আগে তিনবার নয়াদিল্লির এই প্রয়াস ভেটো প্রয়োগ করে আটকে দিয়েছিল বেজিং। আর সেই আশঙ্কাই এবারও সত্যি হল। রাষ্ট্রপুঞ্জ সূত্রে খবর, প্রক্রিয়াগত কারণ দেখিয়েই চতুর্থবার এই ঘোষণাকে আটকে দিয়েছে চীন। রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের অন্যান্য স্থায়ী সদস্যরা রাজি থাকলেও তাদের সঙ্গে একমত হয়নি চীন। আর বেজিংয়ের এই পদক্ষেপেই যথারীতি হতাশ দিল্লি। নিয়ম অনুযায়ী প্রস্তাব আনার দশ দিনের মধ্যে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের কোনও দেশ এই বিষয়ে আপত্তি না জানালে প্রস্তাবটি পাশ হয়ে যেত। সেই অনুযায়ী বুধবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে বারোটার আগেই এই নিয়ে নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিতে হত চীনকে। কিন্তু সেই সময়সীমার শেষ মুহূর্তে এসে প্রক্রিয়াগত কারণ দেখিয়ে এই ঘোষণা আটকে দেয় চীন। বেজিংয়ের দাবি, এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে তাঁদের আরও সময় লাগবে। ফলে ফের এবার আটকে গেল সেই প্রক্রিয়া। এদিকে, চীনের এই অবস্থান নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসেবে চিহ্নিত করতে কোনও চেষ্টার খামতি রাখবে না ভারত। কূটনৈতিক মহলের বক্তব্য, চীনের এই কাজে ধাক্কা খেল সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ভারতের অবস্থান এবং স্বার্থ। মার্কিন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবার্ট পালাডিনো বলেন, ‘‌মাসুদ আজহার আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসী ঘোষণার যোগ্য। ভুললে চলবে না আমেরিকা এবং চীন শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্য পারস্পরিক বোঝাপড়ার ভিত্তিতে কাজ করে। তাই মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী ঘোষণা না করলে সেই বোঝাপড়ার উদ্দেশ্যই ব্যর্থ হবে।’‌ 

জনপ্রিয়

Back To Top