আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের সামনে এলো পাকিস্তান সরকার আর সেনাবাহিনীর ফাটলের ছবি। পাক সেনার তরফে সাফ ঘোষণা করা হয়েছে, যে সব ভারতীয় শিখ ধর্মাবলম্বীরা কর্তারপুরের গুরুদ্বার দরবার সাহিবে যাবেন তাঁদের সবারই পাসপোর্ট থাকাটা জরুরি। বৃহস্পতিবারই পাক সংবাদমাধ্যমের একটি রিপোর্টে পাক সেনার মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গফুরের ওই সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হয়েছে। বুধবার নেওয়া ওই সাক্ষাৎকারে গফুর সাফ জানিয়েছেন, ‘‌নিরাপত্তার কারণে প্রবেশ সম্পূর্ণ আইনি প্রক্রিয়ায় করা হবে। সেজন্য পাসপোর্টের পরিচয়ের ভিত্তিতেই প্রবেশাধিকার মিলবে। ‌নিরাপত্তা বা সার্বভৌমত্ব নিয়ে কোনও বোঝাপড়া করা হবে না।’‌ বুধবারই ভারতের তরফে পাকিস্তানকে জিজ্ঞাসা করা হয় ভারতীয় শিখ তীর্থযাত্রীদের পাসপোর্টের প্রয়োজন আছে কিনা তা যেন পরিষ্কারভাবে জানায় পাকিস্তান।

দিল্লির ওই প্রশ্নের জবাবে এই প্রতিক্রিয়া দিয়েছে পাক সেনাবাহিনী।
গত এক তারিখই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ঘোষণা করেছিলেন শুধু যে সব ভারতীয় শিখরা কর্তারপুরে যাবেন তাঁদের পাসপোর্টের প্রয়োজন নেই। শুধু যে কোনও বৈধ পরিচয়পত্র থাকলেই চলবে। তারপরই পাক সেনার এই ঘোষণায় পাক সরকারের উপর সেনাবাহিনীর লাগামের চিত্রটা পরিষ্কার করে দিল। এদিকে, বৃহস্পতিবারও ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রভীশ কুমার বলেছেন, এখনও আগামী ৯ তারিখ কর্তারপুর করিডোরে হতে চলা উদ্বোধনী জাঠার সময় নিরাপত্তা বা স্বাস্থ্য পরিষেবাজনিত ব্যবস্থাপনা নিয়ে এখনও ঠিকমতো কিছু জানায়নি পাকিস্তান। তিনি বললেন, ‘‌আমরা আগেও বলেছিলাম, আজও পাকিস্তানকে বলেছি কোনও উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদের সফরের আগে পরিদর্শন জরুরি।’‌ কিন্তু এখনও পর্যন্ত পাকিস্তানের তরফে কোনও সদর্থক উত্তর আসেনি বলে এদিন জানিয়েছেন রভীশ কুমার।
ছবি:‌ এএনআই‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top